কুমিল্লায় জুতার ভেতরে বিশেষ কৌশলে ২০টি স্বর্ণবার পাচার করতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়েছেন মাহমুদুল হক (৪২) নামে এক ব্যক্তি। শুক্রবার দুপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চান্দিনা উপজেলার রারিরচর এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। প্রতিটি স্বর্ণবারের ওজন প্রায় ১০ ভরি। উদ্ধার করা সোয়া দুই কেজি (২০০ ভরি) স্বর্ণের বাজার মূল্য প্রায় এক কোটি ত্রিশ লাখ টাকা।

আটক মাহমুদুল হাসান চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া উপজেলার ছোটবারকোনা গ্রামের আব্দুল সবুরের ছেলে। তিনি স্বর্ণ চোরাকারবারী বলে দাবি পুলিশের।

পুলিশ জানায়, মাহমুদুল হক ২০টি স্বর্ণবার কচটেপ দিয়ে মুড়িয়ে বিশেষ কৌশলে জুতার ভেতরে করে পাচারের জন্য নিয়ে যাচ্ছিলেন। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে চান্দিনা থানার এসআই নোমান হোসেনের নেতৃত্বে একটি টহল টিম মহাসড়কে অবস্থান নেয়। চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী বাসটি উপজেলার রারিরচর এলাকায় গতিরোধ করার সঙ্গে সঙ্গে বাস থেকে নেমে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন মাহমুদুল। পরে তাকে আটক করে তার দেহ তল্লাশি করে দুই পায়ের জুতার ভেতর থেকে ২০টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আশরাফুন নাহার ও থানার ওসি মোহাম্মদ আরিফুর রহমান। এ সময় সবার উপস্থিতিতে কচটেপ মোড়ানো বারগুলো জব্দ করে পুলিশ।

চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আরিফুর রহমান জানান, তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে স্বর্ণের চোরাচালান বিষয়ে বেশ কিছু তথ্য পাওয়া গেছে।  এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।