যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব কেন্টে ডেভেলপমেন্ট ইকোনমিক্স-এর ওপর কোর্সের প্রথম ধাপ সম্পন্ন করে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটিতে সম্পন্ন করা যাবে গবেষণা প্রবন্ধ। ব্র্যাক ও ইউনিভার্সিটি অব কেন্ট-এর মধ্যে সম্প্রতি এই বিষয়ক চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে।

এই ডেভেলপমেন্ট ইকোনমিক্স প্রোগ্রাম উপলক্ষে ৩০ নভেম্বর ‘লঞ্চ ইভেন্ট অব ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি-ইউনিভার্সিটি অব কেন্ট কোলাবোরেশন’ শীর্ষক অনলাইন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ফল-২০২১ সেমিস্টার থেকে শিক্ষার্থী বিনিময় সহযোগিতা কার্যকর হয়েছে।

অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থী বিনিময় সংক্রান্ত চুক্তির বিভিন্ন বিষয়ে ধারণা দেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সদস্য প্রফেসর ড. বিশ্বজিৎ চন্দ, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি‘র ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ভিনসেন্ট চ্যাং এবং ইউনিভার্সিটি অফ কেন্টের গ্লোবাল অ্যান্ড লাইফ লং লার্নিং-এর ডিরেক্টর ও ডিন ড. অ্যান্থনি ম্যানিং।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির ইকোনমিক্স অ্যান্ড সোশাল সায়েন্সেস-এর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন প্রফেসর ড. ফারজানা মুন্সী, রেজিস্ট্রার ড. ডেভিড ড্যাউল্যান্ড, জেনারেল এডুকেশন অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. সামিয়া হক এবং ইউনিভার্সিটি অফ কেন্টের গ্রাজুয়েট স্টাডিজ (এমএসসি)-এর ডিরেক্টর ড. অ্যান্ড্রি লুনভ ও রিডার ইন ইকোনমিক্স ড. জাকি ওয়াহাজ।

উদ্বোধনী বক্তব্যে প্রফেসর ফারজানা মুন্সী ইকোনমিক্স অ্যান্ড সোশাল সায়েন্সেস বিভাগ সম্পর্কে ধারণা প্রদান করেন। সঙ্গে উচ্চশিক্ষার গন্তব্য হিসেবে যুক্তরাজ্যের প্রতি শিক্ষার্থীদের ক্রমবর্ধমান আগ্রহের কারণ বর্ণনা করেন।

প্রফেসর ভিনসেন্ট চ্যাং জানান, আন্তর্জাতিকীকরণ ও মানসম্পন্ন শিক্ষা হাতে হাত রেখে চলে। ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির লক্ষ্য হলো- এই দশকের শেষ নাগাদ বিশ্ব মানচিত্রে বাংলাদেশের একটি গর্বিত আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হওয়া। এই ধরনের সহযোগিতার ব্র্যাককে ওই জায়গা এনে দেবে।

ইউনিভার্সিটি অব কেন্টের ড. অ্যান্থনি ম্যানিং ও ড. অ্যান্ড্রি লুনভ তাদের বক্তব্যে ইউনিভার্সিটি অব কেন্ট-এর বিভিন্ন প্রোগ্রাম ও দেশের সীমা পেরিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বিশ্ববিদ্যালয়টির বিভিন্ন সম্পৃক্ততার কথা তুলে ধরেন। ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন মনে করেন, এই সহযোগিতা কার্যক্রমে শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশের উন্নয়নের চ্যালেঞ্জগুলো জানতে পারবেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।