মুন্সীগঞ্জের চর মুক্তারপুরের একটি ভবনে বিস্ফোরণে অগ্নিদগ্ধ ভাই-বোনের পর এবার তাদের বাবা কাওসার খান (৩৬) মারা গেছেন।

শনিবার সকালে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

কাওসার কিশোরগঞ্জ জেলা সদরের বাসিন্দা আব্দুস সালাম খানের ছেলে। তিনি প্রায় আট বছর ধরে মুন্সীগঞ্জে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠঅ কর্মরত ছিলেন।  

এর আগে, বৃহস্পতিবার ভোরে শহরের চর মুক্তারপুরের শাহ সিমেন্ট রোডে জয়নাল মিয়ার চারতলা ভবনের দ্বিতীয় তলার তিনটি কক্ষে বিস্ফোরণ হয়। এতে কাওসার, তার স্ত্রী শান্তা বেগম (২৭) , ছেলে ইয়াসিন (৬) ও  মেয়ে  ফাতেমা ওরফে নোহর (৩) অগ্নিদগ্ধ হয়। তাদের গুরুতর অবস্থায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। সেদিন রাতেই অগ্নিদগ্ধ ইয়াসিন ও ফাতেমা মারা যায়। শনিবার সকালে অগ্নিদগ্ধ কাওসারের মৃত্যু হয়। 

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রাজিব খান জানান, শান্তা বেগমের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। তার শরীরের ৫৫ শতাংশ পুড়ে গেছে। 

তিনি আরও জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে গ্যাস লিকেজ হয়ে কক্ষে জমে থাকা গ্যাস থেকে এ বিস্ফোরণ ঘটে। শীতের কারণে কক্ষের সব জানালা বন্ধ ছিল। তবে প্রকৃত কারণ উদঘাটনে তদন্ত চলছে।