দুর্নীতিকে হালকাভাবে দেখার সুযোগ নেই। দুর্নীতির কালো হাত ভেঙে দিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট।

ঢাকা ব্যাংকের বংশাল শাখার ভল্ট থেকে চার কোটি টাকা লুটের ঘটনায় দুদকের করা মামলায় এক আসামির জামিন আবেদনের শুনানিতে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার এ কথা বলেন।

ব্যাংকের ভল্টে রাখা টাকা যায় কীভাবে, এমন প্রশ্ন রেখে হাইকোর্ট বলেন, রিপোর্ট হয়েছে, ভুয়া বিলের মাধ্যমে টাকা নিয়ে গেছে। কোনো টেন্ডার নেই, কোনো চেক নেই, অথচ টাকা নিয়ে গেছে, এটি দুর্ভাগ্যজনক। দুর্নীতিকে হালকাভাবে দেখার সুযোগ নেই। দুর্নীতির এই কালো হাত ভেঙে দিতে হবে।

এর আগে মামলাটিতে ব্যাংকটির বংশাল শাখার তখনকার ক্যাশ ইনচার্জ রিফাতুল হক জামিন চেয়ে আবেদন করা হয়। কিন্তু শুনানি নিয়ে আবেদনটি উত্থাপিত হয়নি বলে খারিজ করে দেন আদালত।

আদালতে রিফাতুলের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. ওয়াহিদুজ্জামান সোহেল। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমিন উদ্দিন মানিক। দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী এমএ আজিজ খান।