বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, ‌‌'মুক্তিযুদ্ধের বিজয়ের পঞ্চাশ বছরেও স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রে সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হয়নি। মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতাসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি করা হলেও মানুষ দরিদ্র ও কর্মহীনতার শিকার।'

বুধবার ঝালকাঠি প্রেস ক্লাবে সম্মিলিত মুক্তিযোদ্ধা সংসদের মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা অনুষ্ঠান ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করতে গিয়ে রাশেদ খান মেনন এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, 'দীর্ঘ সময় ধরে সামরিক শাসন ও স্বৈরশাসন দেশের মানুষকে মুক্তিযুদ্ধের বিকৃত ইতিহাস মুখস্থ করতে বাধ্য করেছে। ষড়যন্ত্র থেমে নেই। ইউটিউব খুললেই জাতীয় পতাকা, সংগীত ও সংবিধান নিয়ে বিরূপ মন্তব্য শোনানো হয়।'

মেনন বলেন, 'আজ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষে তার ভাস্কর ও ম্যুরাল ধ্বংস করার ঔদ্ধত্য দেখা যায়। নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানাতে হবে।'

বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক মৃধার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও ১৪ দলের সমন্বয়ক-মুখপাত্র আমির হোসেন আমু এমপি। আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শাজাহান খান এমপি, ওয়ার্কার্স পার্টির ঢাকা মহানগর সভাপতি আবুল হোসাইন প্রমুখ।