রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র মাহাদী হাসান লিমনকে চাপা দেওয়া লরিচালক ইউসুফ আলীকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। বুধবার ভোরে চট্টগ্রামের সন্দ্বীপের একটি চরে ডিবি উত্তরা বিভাগের একটি দল অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে। বৃহস্পতিবার ইউসুফ আলীকে ঢাকায় এনে আদালতের মাধ্যেমে তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

গত শনিবার মধ্যরাতে বিমানবন্দর সড়কের কাওলা এলাকায় মোটরসাইকেল আরোহী লিমন লরির চাপায় নিহত হন। তিনি গ্রিন ইউনিভার্সিটির টেক্সটাইল বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র ছিলেন। নিরাপদ সড়কের দাবিতে চলা শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যেই এই দুর্ঘটনা ঘটে।

ডিবি জানায়, ওই দুর্ঘটনার পর নিহতের বাবা বিমানবন্দর থানায় মামলা করেন। এরপরই ডিবি মামলাটি ছায়াতদন্ত শুরু করে। এক পর্যায়ে চালককে শনাক্ত করা গেলেও তিনি বারবার স্থান পরিবর্তন করছিলেন। শেষ পর্যন্ত তাকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়। ওই ঘটনায় তার সহকারী এখনও পলাতক।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) উত্তরা বিভাগের অতিরিক্ত উপ কমিশনার কায়সার রিজভী কোরায়েশী সমকালকে বলেন, লরির চালক ইউসুফ আলী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র লিমনকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। ঘটনার পর তিনি কুমিল্লা অবস্থান করেন। সেখান থেকে গ্রামের বাড়ি নোয়াখালীর সুবর্ণচরে আত্মগোপন করেন। সেখানে অভিযানের আগেই সন্দ্বীপের উড়িরচর এলাকায় আত্মগোপনে চলে যান।

ডিবির এই কর্মকর্তা বলেন, সমুদ্র পার হয়ে উড়ির চরের দুর্গম এলাকায় যেতে হয়। ওই এলাকা থেকেই চালককে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়। ড্রাইভিং লাইসেন্স রয়েছে কি-না বা এমন দুর্গম এলাকায় আত্মগোপনের রহস্য জানতে চালক ইউসুফকে তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।