জয়পুরহাটের কালাই পৌরশহরের আঁওড়া মহল্লায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে আকবর আলী (৯০) নামে এক বৃদ্ধকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে তার ছেলের বিরুদ্ধে।  

রোববার ভোরে আঁওড়া মহল্লা থেকে পুলিশ বৃদ্ধর মরদেহ উদ্ধার করেছে।  

প্রতিবেশী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বৃদ্ধ আকবর আলীর এক স্ত্রী, তিন ছেলে আর দুই মেয়ে। তার বসতবাড়িতে ৮ শতাংশ জমি রয়েছে। কিছুদিন আগে ওই জমির মধ্যে তার ছোট ছেলে খাজের আলীকে ৩ শতাংশ জমি লিখে দেন। বৃদ্ধ মেজ ছেলে আব্দুল কুদ্দুসের সংসারে খাবার খেতেন বলে তাকে ৫ শতাংশ জমি লিখে দেন। আর বড় ছেলে আব্দুল গফুরকে কোনো জমি দেননি। 

ছোট ও মেঝ ছেলের মধ্যে জমির অংশ কম-বেশি হওয়ার কারণে প্রায় মাসখানেক ধরে বাবার সঙ্গে ছোট ছেলের ঝগড়া লেগেই ছিল। রোববার ভোরে বৃদ্ধের শয়নকক্ষ থেকে তার গলায় ফাঁস দেওয়া মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। 

নিহত বৃদ্ধের বড় ছেলে আব্দুল গফুর অভিযোগ করেন, আমার বাবা এই বয়সে আত্মহত্যা করতে পারেন না। তিনি নিজে ঠিকমত দাঁড়াতেও পারেন না। তাহলে আত্মহত্যা করবেন কীভাবে? তাকে হত্যা করা হয়েছে। আমি মামলা করবো। বাবা হত্যার বিচার চাই।   

কালাই থানার ওসি সেলিম মালিক বলেন, পরিবারে জমি নিয়ে বিরোধ এমনটা শুনেছি। তবে হত্যা না আত্মহত্যা তার মূল রহস্য উৎঘাটন করতেই ওই বৃদ্ধর মরদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট হাতে পেলেই সবকিছু জানা যাবে। এখন পর্যন্ত মামলা বা অভিযোগ কিছুই পাওয়া যায়নি।