ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

শৈত্যপ্রবাহ ৬ জেলায়, বুধবার বৃষ্টি হতে পারে দক্ষিণাঞ্চলে

শৈত্যপ্রবাহ ৬ জেলায়, বুধবার বৃষ্টি হতে পারে দক্ষিণাঞ্চলে

দেশের অনেক অঞ্চলের আবহাওয়া মৃদু শৈত্যপ্রবাহের কাছাকাছি রয়েছে। পঞ্চগড় এলাকা থেকে তোলা। ছবি: সমকাল

সমকাল প্রতিবেদক

প্রকাশ: ২১ জানুয়ারি ২০২৪ | ১৬:২৫ | আপডেট: ২১ জানুয়ারি ২০২৪ | ১৬:৫৮

দেশের ছয় জেলায় আজ শৈত্যপ্রবাহ বয়ে চলছে। দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা গতকালের মতোই অপরিবর্তিত রয়েছে। তবে রাজধানীতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বেড়েছে। 

মাঘের সপ্তম দিনে আজ রোববার সকাল থেকেই রাজধানীর আকাশে কুয়াশা অনেকটা কেটে গেছে। দেখা গেছে রোদের মুখ। এ সপ্তাহের শেষ দিকে অর্থাৎ বুধ ও বৃহস্পতিবার দেশের দক্ষিণাঞ্চলে বৃষ্টি হতে পারে। 

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ মো. মনোয়ার হোসেন সমকালকে বলেন, মাসজুড়েই শীত থাকবে। দিনের তাপমাত্রা সর্বোচ্চ ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রাতের তাপমাত্রা থাকতে পারে ৯ দশমিক ৭ থেকে ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকতে পারে। এছাড়াও চলতি মাসের ২৪, ২৫ তারিখে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের উপকূলীয় এলাকায় বৃষ্টি হতে পারে। পরদিন থেকে আবার আবহাওয়া স্বাভাবিক হতে পারে।

আজ রোববার আবহাওয়া অধিদপ্তরের ৭২ ঘণ্টার বুলেটিনের (বার্তা) তথ্যে জানা যায়, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলাসহ সারাদেশে আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। আজ মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারাদেশে ঘন কুয়াশা থাকতে পারে এবং তা দুপুর পর্যন্ত কোথাও কোথাও অব্যাহত থাকতে পারে।

বুলেটিনে আরও বলা হয়, কিশোরগঞ্জ, রাজশাহী, পাবনা, নওগাঁ, পঞ্চগড় ও কুড়িগ্রাম জেলাসমূহের উপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে। দেশের উত্তর-উত্তর পূর্বাঞ্চলে রাতের তাপমাত্রা সামান্য তাপমাত্রা হ্রাস পেতে পারে এবং দেশের অন্যত্র তা বৃদ্ধি পেতে পারে। এছাড়াও আজ সারাদেশে বাতাসের আদ্রতা থাকছে ৯৪ শতাংশ।

সিনপটিক অবস্থায় বলা হয়েছে, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে, এর বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।

আজ দেশের সর্বনিম্ন ৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ছিল রাজশাহী, ঈশ্বরদী ও নওগাঁর বদলগাছিতে। সর্বোচ্চ ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে। আর ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৪ দশমিক ৪ ডিগ্রি ও সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

দেশের অনেক অঞ্চলের আবহাওয়া মৃদু শৈত্যপ্রবাহের কাছাকাছি রয়েছে। কোনো অঞ্চলের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা দুই থেকে তিন দিন ১০–৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে নেমে এলে সেখানে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যায়।

পঞ্চগড় প্রতিনিধি জানান, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা আবারও কমেছে। দিনভর সূর্যের দেখা মেলেনি। হিমশীতল বাতাস আর ঘন কুয়াশায় কনকনে শীত অব্যাহত রয়েছে। আজ সকাল ৯টায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি রেকর্ড করেছে তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিস। তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রাসেল শাহ বলেন, আজ সকাল ৯টায় সর্বনিম্ন ১০ ডিগ্রি তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়। গতকাল শনিবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১০ দশমিক ২ ডিগ্রি। দিনের তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ২১ দশমিক ২ ডিগ্রি।

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি জানান, তিন দিন ঝলমলে সূর্যের মুখ দেখার পর আজ রোববার আবারও বইছে চলতি শীত মৌসুমের তৃতীয় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ। মাঘের প্রথম সপ্তাহে হাঁড় কাঁপানো হিমেল বাতাসে আর ঘন কুয়াশার ঠান্ডায় বিপর্যস্ত শ্রমজীবী ও নিম্ন আয়ের মানুষ।

মৃদু শৈত্যপ্রবাহ থাকায় আজ আবারও কুড়িগ্রামের ১ হাজার ২৪০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৩৮৬টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ২২২টি মাদ্রাসা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা এ জেলায় আজ বেলা ১২টা পর্যন্ত দেখা যায়নি সূর্যের। ঘন কুয়াশার কারণে হেডলাইট জ্বালিয়ে চলছে যানবাহনগুলো। সকালে জেলার ভুরুঙ্গামারীতে ঘন কুয়াশায় সড়ক দুর্ঘটনায় বাবা-ছেলে মারা যান।

রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র সরকার জানান, আজ সকাল ৯টায় জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। জেলার উপর দিয়ে চলতি শীত মৌসুমের তৃতীয় শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে, যা আগামী দুই-তিনদিন অব্যাহত থাকবে।

আরও পড়ুন

×