বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক (ডিজি) মো. লিয়াকত আলী লাকীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। 

তার কাছে পাঠানো নোটিশে তাকে আগামী ১৬ জানুয়ারি রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে হাজির হতে বলা হয়েছে।

নোটিশে ওইদিন সকাল দশটায় হাজির হয়ে অনুসন্ধান কাজে সহযোগিতা করতে বলা হয়েছে। 

দুদকের আইন অনুযায়ী কোনো অভিযুক্ত ব্যক্তিকে ডাকা হলে তিনি যথাসময়ে হাজির না হলে অভিযোগ সম্পর্কে তার বক্তব্য নেই বলে ধরে নেওয়া হয়। 

একই সঙ্গে আইন অনুযায়ী অনুসন্ধানের পরবর্তী কার্যক্রম পরিচালিত হয়।

জানা গেছে, ঘুষ, দুর্নীতি, ভুয়া বিল-ভাউচারের প্রতিষ্ঠানের শত শত কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ সম্পর্কে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে দুদক। অনুসন্ধানের স্বার্থে আগামী ১১ জানুয়ারির মধ্যে প্রয়োজনীয় নথিপত্র চেয়ে দুদক থেকে শিল্পকলা একাডেমিতে চিঠি পাঠানো হয় গত বৃহস্পতিবার।

লিয়াকত আলী লাকী শিল্পকলা একাডেমি মহাপরিচালকের দায়িত্বে আছেন প্রায় এক যুগ ধরে।

ডিজি লাকীর বিরুদ্ধে দুদকে পেশ করা অভিযোগে বলা হয়, গত বছরের ৩০ জুন শিল্পকলা একাডেমির আগের সচিব নওশাদ হোসেনের বদলি হওয়ার দিনেই নতুন আদেশ জারি করিয়ে কর্তৃত্ব খাটিয়ে প্রতিষ্ঠানের চুক্তিভিত্তিক পরিচালক সৈয়দা মাহবুবা করিমকে সচিবের দায়িত্ব দেন লাকী। ৩০ জুন থেকে ১৯ জুলাই পর্যন্ত সরকারি বরাদের অর্থ থেকে প্রায় ২৬ কোটি টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করা হয়।

এছাড়া অভিযোগে বলা হয়, সঙ্গীত বিভাগের কক্ষের জন্য পর্দা, ক্রোকারিজ ও ফার্নিচার না ক্রয় না করে ভুয়া ভাউচারের মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ করা হয়। 

ড্যান্স অ্যাগেইনস্ট করোনা কর্মসূচির আওতায় নৃত্যদলের সম্মানী, কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক ক্রয়, প্রামাণ্য চিত্র তৈরি, প্রপস কস্টিউম, প্রচারনা ও নানা ক্ষেত্রে বিপুল অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।