বিশ্বে প্রথমবারের মতো মার্কিন এক রোগীর শরীরে শূকরের হৃদপিণ্ড প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। ৫৭ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি অস্ত্রোপচারের তিনদিন পরও বেশ সুস্থ আছেন। তার নাম ডেভিড বেনেট।

তবে এই রোগীর শরীরে শূকরের হৃদপিণ্ড প্রতিস্থাপন করার আগে হৃদপিণ্ডটিকে জেনেটিক্যালি রূপান্তরিত করে নেওয়া হয়। খবর বিবিসির

চিকিৎসকরা বলছেন, সাত ঘণ্টা ধরে পরীক্ষামূলকভাবে এ অস্ত্রোপচার চালানো হয়। যুক্তরাষ্ট্রের বাল্টিমোরে এ অস্ত্রোপচার হয়। অস্ত্রোপচারের তিনদিন পরও ডেভিড বেনেট বেশ সুস্থ রয়েছেন।

ডেভিড বেনেটের জীবন বাঁচাতে চিকিৎসকদের পক্ষ থেকে এটাই সর্বশেষ চেষ্টা ছিল। তবে দীর্ঘমেয়াদে তিনি কতদিন সুস্থ থাকতে পারবেন, তা এখনও স্পষ্ট করে বলেননি চিকিৎসকরা।


এদিকে অস্ত্রোপচারের একদিন আগে বেনেট বলেছিলেন, আমার সামনে বিকল্প পথ দুইটা, হয় অস্ত্রোপচার করা অথবা মারা যাওয়া। আমি জানি এটা অন্ধকারে গুলি ছোড়ার মতো একটা ব্যাপার। কিন্তু আমার আর কোনো উপায় নেই। এটাই শেষ চেষ্টা।

বিশ্বের প্রথম এ ধরনের অস্ত্রোপচার করার জন্য ইউনিভার্সিটি অব মেরিল্যান্ড মেডিকেল সেন্টারকে বিশেষ অনুমতি দিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের চিকিৎসা তদারকি কর্তৃপক্ষ।

মানব হৃদপিণ্ড প্রতিস্থাপনের জন্য তিনি উপযুক্ত ছিলেন না। সাধারণত রোগীর স্বাস্থ্য অত্যন্ত দুর্বল হলে চিকিৎসকরা এ ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন।

চিকিৎসকদের যে দল এ অস্ত্রোপচার করেছে, তারা বহু বছর ধরে এ নিয়ে গবেষণা করছিল। এটি সফল হলে সারাবিশ্বের কোটি কোটি মানুষের জীবন বদলে যাবে।

ইউনিভার্সিটি অব মেরিল্যান্ড স্কুল অব মেডিসিনে এক বিবৃতিতে সার্জন বার্টলে গ্রিফিথ বলেছেন, ‘অঙ্গপ্রত্যঙ্গ স্বল্পতার সমাধানে এই অস্ত্রোপচার বিশ্বকে এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে।’