বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, ‘মানুষের ভোটাধিকারের জন্য যুদ্ধ করছি, ভোট পাওয়ার জন্য নয়। রাষ্ট্র মেরামতের জন্য, গণতন্ত্র ফেরানোর জন্য যুদ্ধ। একটি দুর্নীতিমুক্ত ও সম্মানজনক জাতি হিসেবে বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশকে পৌঁছানোর জন্য যুদ্ধ করছি।’

বুধবার বিকেলে খুলনার ডুমুরিয়ার গুটুদিয়া মাঠে গণসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে সুচিকিৎসার দাবিতে খুলনা জেলা ও মহানগর বিএনপি এই সমাবেশের আয়োজন করে।

গয়েশ্বর বলেন, 'দেশের মালিক জনগণ, কোনো রাজনৈতিক দল নয়। পৈতৃক সূত্রে কেউ দেশের ওয়ারিশ না, এই ধারণাটা পরিহার করতে হবে।’

তিনি বলেন, ’খুন-গুম, সন্ত্রাস, লুটপাট করে সরকার দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করছে। তাদের পায়ের নিচে মাটি নেই। আমরা যদি শুরু করি- পালাবার কোনো জায়গা পাবেন না, বিদেশেও পালিয়ে যেতে দেব না।’

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মশিউর রহমান বলেন, ‘২০২২ সালের মধ্যে এই সরকারের পতন হবে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর অধীনে কোনো নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না।' নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, 'দলকে শক্তিশালী করুন। রাজপথে নামুন। রক্ত না দিলে মুক্তি মেলে না।’

তিনি বলেন, সমাবেশে আসার সময় পুলিশ নেতাকর্মীদের পথে পথে বাধা দিয়েছে। বাস আটকে দিয়েছে। তারপরও জনস্রোত ঠেকাতে পারেনি তারা।

সমাবেশে প্রধান বক্তা ছিলেন খুলনা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক শফিকুল আলম মনা। সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আমীর এজাজ খান। উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আজিজুল বারী হেলাল, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আবু হোসেন বাবু, সদস্য সচিব মনিরুল হাসান বাপ্পী, মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক তরিকুল ইসলাম জহির, সদস্য সচিব শফিকুল আলম তুহিন, ডুমুরিয়া উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মোল্লা মোশাররফ হোসেন মফিজ প্রমুখ।