করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে সরকার আরোপিত ১১ দফা বিধিনিষেধ দেশব্যাপী আজ বৃহস্পতিবার থেকে বলবৎ হবে। প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী এ বিধিনিষেধ পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।

প্রস্তুতিতে ঘাটতি ও অস্পষ্টতা নিয়ে আরোপিত বিধিনিষেধ কতটা কার্যকর করা সম্ভব হবে, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে ইতোমধ্যে প্রশ্ন উঠেছে। এজন্য বিষয়টিকে সরকারের জন্যও চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা হচ্ছে। কারণ, এর আগে কয়েক দফায় জারি করা বিধিনিষেধ ও লকডাউন তেমনভাবে কার্যকর হয়নি। সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণেও তা কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারেনি। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে বরাবরের মতো বলা হয়েছে, এবার আগের মতো ঢিলেঢালা নয়, বিধিনিষেধ কঠোরভাবে পালন করা হবে। বিশেষ করে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাকে গুরুত্ব দেওয়া হবে। মাস্ক ছাড়া ঘরের বাইরে বের হলে তাকে শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।

গতকাল বুধবার রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ১১ দফা বিধিনিষেধ মানতে সরকার কঠোর হবে। সবাইকে বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরতে হবে। মাস্ক ছাড়া ঘরের বাইরে কাউকে পাওয়া গেলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা করা হবে। এমনকি জেল পর্যন্ত হতে পারে।

মন্ত্রী বলেন, ওমিক্রন বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ ছড়িয়েছে। বাংলাদেশেও এটি শনাক্ত হয়েছে। কয়েক দিন আগেও সংক্রমণের হার ছিল দুই শতাংশের কাছাকাছি। এখন সেটি ১২ শতাংশের কাছাকাছি পৌঁছেছে। সংক্রমণের হার এভাবে বাড়তে থাকলে আগামী কয়েক দিনে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা বাড়বে। রোগীর সংখ্যা তিন থেকে চার গুণ বেড়ে গেলে বেকায়দায় পড়ে যাব। আপাতত ২০ হাজার শয্যা প্রস্তুত রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বিধিনিষেধের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী চলাচল করার বিষয়টি নিয়ে। গতকাল বিকেলে অনুষ্ঠিত বৈঠকেও বিষয়টি সুরাহা হয়নি। পরিবহন মালিক ও শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে বিআরটিএর চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে শনিবার থেকে বাস চলাচল করবে। এজন্য ভাড়া বাড়ানো হচ্ছে না। তবে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি মশিউর রহমান রাঙ্গাঁ সাংবাদিকদের জানান, যত আসন তত যাত্রী পরিবহন করার দাবি জানিয়েছেন তারা।

'সঠিকভাবে কার্যকর ছাড়া কাজে আসবে না' :আরোপিত বিধিনিষেধ সঠিকভাবে কার্যকর করতে না পারলে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে তা কোনো কাজে আসবে না বলে মনে করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও ভাইরোলজিস্ট অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম।

একই কথা বলেছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের আঞ্চলিক উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. মোজাহেরুল হকও। তিনি সমকালকে বলেন, শুধু আদেশ জারির মধ্যে যাতে কার্যক্রম সীমাবদ্ধ না হয়ে পড়ে সেদিকে গুরুত্ব দেওয়া প্রয়োজন।

বিষয় : বিধিনিষেধ বলবৎ

মন্তব্য করুন