রাজধানীর দক্ষিণখানে দুই শিশুকে ধর্ষণ মামলায় কলেজছাত্র সিফাত ভুঁইয়াকে ছয় বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। 

ঢাকার ৫ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক বেগম শামসুন্নাহার বৃহস্পতিবার এ রায় দেন। ঘটনার সময় সিফাতের বয়স ১৪ বছর হওয়ায় শিশু বিবেচনায় এই লঘুদণ্ড দেওয়া হয়।

রায়ে বিচারক বলেন, আসামির বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণ হয়েছে। তবে সংশ্লিষ্ট ধারায় আসামির সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। কিন্তু আসামি একজন শিশু। শিশু আইনে এমন দণ্ডে বাধা আছে। সেসব বিষয় বিবেচনা করে আসামিকে ধর্ষণের অভিযোগে শিশু আইনে ছয় বছর বিনাশ্রম কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও দুই মাস কারাগারে থাকতে হবে। 

রায়ে বলা হয়, আসামি শিশু হওয়ায় এখন কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে থাকবে। কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র পরে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। 

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আবদুল আওয়াল বকুল বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

রায় ঘোষণা শেষে সিফাতকে সাজা পরোয়ানা দিয়ে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো হয়। ওই দুই শিশু সিফাতের ফুফাতো ও চাচাতো বোন। তাদের ধর্ষণের অভিযোগে সিফাতের ফুফু ২০১৭ সালের জুনে দক্ষিণখান থানায় মামলা করেন।

মামলায় তিনি অভিযোগ করেন, ২০১৭ সালের ১৯ জুন শ্বশুর অসুস্থ হওয়ায় দুই শিশুকে বাসায় রেখে তিনি হাসপাতালে যান। মাগরিবের নামাজের পর তারা বাসায় ফিরে আসেন। এর কয়েক দিন পর তার মেয়ে ঘটনাটি জানায়। বিস্তারিত জেনে তিনি থানায় মামলা করেন।