রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী রাশেদুল ইসলামকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে দুই ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে। মারধরের ঘটনাকে অন্যখাতে নিয়ে যেতে পরে রাশেদকে শিবির আখ্যা দেওয়া হয়। শুক্রবার রাত ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ জিয়াউর রহমান হলে এ ঘটনা ঘটে।

মারধরে অভিযুক্তরা হলেন- কলা অনুষদ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাহিদ হাসান জয় এবং ছাত্রলীগকর্মী বুলবুল মাহমুদ। উভয়েই ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী এবং ভুক্তভোগী রাশেদের সহপাঠী। তারা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনুর অনুসারী বলে জানা গেছে।

হলের শিক্ষার্থীরা জানান, শুক্রবার রাতে অভিযুক্তরা জিয়াউর রহমান হলে রাশেদের ৪১৪ নম্বর কক্ষে যান। এ সময় ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের ফেসবুক গ্রুপের এডমিন হওয়া নিয়ে রাশেদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে অভিযুক্তরা রাশেদকে কিল-ঘুষি দিয়ে আঘাত করা শুরু করেন। পরে অভিযুক্তরা ছাত্রলীগ নেতাদের ফোন দিয়ে ‘শিবির ধরা পড়েছে’ বলে জানায়।

ভুক্তভোগী রাশেদুল ইসলাম বলেন, ‘তারা দুজনই আমার সহপাঠী। তুচ্ছ ঘটনায় মারধর করেছে। নাহিদ ক্ষমতাবান সেটি প্রমাণ করেছে। সহপাঠী হওয়ায় তার বিরুদ্ধে কোথাও অভিযোগ করিনি। সে আজ এসে ভুল হয়েছে বলে স্বীকার করে মিমাংসার জন্য বলেছে। আমাকে শিবির আখ্যা দিয়েছে তারা। কিন্তু আমার পরিবারের সবাই আওয়ামী লীগ করে। আমার চাচা উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা। ইসলামিক স্টাডিজে পড়ি সেজন্য সহজেই কাবু করতে এ ঘটনা থেকে দায়মুক্তি পেতে শিবির বলে চালানোর চেষ্টা করেছে।’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত বুলবুল মাহমুদ বলেন, ‘আমাদের বিভাগের বিষয় নিয়ে একটা ঝামেলা। মারামারির কিছুই হয়নি। মূলত নাহিদ আর রাশেদের মধ্যে ঝামেলা।’

আরেক অভিযুক্ত নাহিদ হাসান জয় বলেন, ‘বন্ধুদের মধ্যে একটু খুনসুটি হয়েছে। মারধরের ঘটনা ঘটেনি। একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে।’

রাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রুনু বলেন, ‘বিষয়টা জেনেছি। খোঁজ-খবর নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জানতে চাইলে শহীদ জিয়াউর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ ড. সুজন সেন বলেন, ‘তারা তিন জনই বন্ধু। রাতে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হালকা মারামারি হয়েছে। পরে নিজেরাই বিষয়টি মিমাংসা করে নিয়েছে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর লিয়াকত আলী বলেন, ‘এ বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেনি। তবে বিষয়টি জেনেছি। এছাড়া বিষয়টির মিমাংসা হয়েছে বলে হল প্রাধ্যক্ষ জানিয়েছেন।’