ফুপুর বাড়ি থেকে নিজ বাড়ি যাওয়ার জন্য ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের বারবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ডে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিল নবম শ্রেণির ছাত্র রাজীব (১৪)। এসময় ঢাকাগামী একটি ট্রাক তার দুই পায়ের ওপর দিয়ে চলে যায়। এতে তার দুটি পা-ই পিষে গেছে।

 শনিবার রাত আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত রাজীবকে রাতেই ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রোববার তার পায়ে অস্ত্রোপাচার করার কথা।

রাজীব ধামরাইয়ের বাথুলি দক্ষিণপাড়া গ্রামের সবজি বিক্রেতা মোখলেছুর রহমানের ছেলে। সে স্থানীয় বেলীশ্বর মোহনী মোহন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র। দরিদ্র পরিবারের ছেলে রাজীবের চিকিৎসার জন্যও মহা বিপাকে পড়ে গেছেন তার পরিবার।

সকালে রাজীবের বাবা মোখলেছুর রহমান জানান, তার ছেলের পা কেটে ফেলতে হবে কিনা তা আজ চিকিৎসকরা জানাবেন। তবে দ্রুত তার পায়ের অস্ত্রোপাচার করতে হবে। এরই মধ্যে তার ব্যাপক রক্তক্ষণ হয়েছে। কয়েক ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন বলেও জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

  এ বিষয়ে গোলড়া হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (পুলিশ পরিদর্শক) মনিরুল ইসলাম বলেন, স্কুলছাত্র দুর্ঘটনার কথা আমাদের কাছে কেউ বলেনি।  আজই খোঁজ নিয়ে ট্রাক ও চালককে আটকের চেষ্টা করা হবে।