তিন দফা দাবি আদায়ে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদকে ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া আইআইসিটি শিক্ষা ভবনে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

রোববার বিকেল তিনটার দিকে উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করা হয়।

এর আগে শিক্ষার্থীরা ক্লাস পরীক্ষা বর্জন করে বেগম সিরাজুন্নেছা চৌধুরী ছাত্রী হলের প্রভোস্ট কমিটির পদত্যাগের দাবিসহ তিন দফা দাবি আদায় এবং ছাত্রীদের চলমান আন্দোলনে ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগে সকাল থেকে সড়ক অবরোধ করে রাখে। 

পরে দুপুর পৌনে তিনটার দিকে গোল চত্বরে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. আলমগীর কবির, ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক জহীর উদ্দীন আহমদ, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. তুলসী কুমার দাস ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মহিবুল আলম।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শিক্ষক সমিতির সভাপতি শিক্ষার্থীদের আশ্বাস দেন হলের গুণগত মান উন্নত এবং অব্যবস্থাপনার সঠিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ জন্য তিনি শিক্ষার্থীদের কাছে সাত দিনের সময় চান। কিন্তু শিক্ষার্থীদের তিন দফা দাবি না মানার পরিপ্রেক্ষিতে তারা বর্ধিত সময় দিতে রাজি হননি।

এর পর শিক্ষার্থীরা শিক্ষকদের পিছু নিয়ে রেজিস্ট্রার ভবনের সামনে গেলে সেখানে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিনকে সামনে পান। 

তখন শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের পিছু নিয়ে ‘ধিক্কার, ধিক্কার’ স্লোগান দিতে থাকে। এ সময় উপাচার্যকে নিয়ে উপস্থিত শিক্ষক ও কর্মকর্তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া আইআইসিটি ভবনে ঢুকলে শিক্ষার্থীরা সেখানে উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রাখে।

রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উপাচার্য আইআইসিটি ভবনের ভেতরে অবরুদ্ধ অবস্থায় রয়েছেন।

আরও পড়ুন>> শাবিপ্রবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা, চলছে বিক্ষোভ