টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে করোনার টিকার নিতে এসে সড়ক দুর্ঘটনায় এক স্কুলছাত্র মারা গেছে। গত রোববার এ দুর্ঘটনা ঘটলেও চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার সকালে মারা যায় ওই ছাত্র। বুধবার ঘটনাটি বিস্তারিতভাবে জানা যায়। ছাত্রের মৃত্যুর ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবিতে তার সহপাঠীরা এদিন বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে।

নিহত সোহাগ মিয়া (১৪) উপজেলার মুশুদ্দি ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়া গ্রামের ভ্যান চালক নূর নবীর ছেলে। সে পানকাতা হাতেম আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির মানবিক বিভাগের ছাত্র ছিল।

শিক্ষার্থীরা জানায়, গত রোববার ছিল পানকাতা হাতেম আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের করোনা টিকা নেওয়ার নির্ধারিত দিন। ওইদিন শিক্ষার্থীরা টিকা নিতে দলে দলে বিভিন্ন রিকশায় উপজেলা পরিষদে আসার সময় পৌর শহরের বান্দ্রা মোড়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। বেপরোয়া গতির একটি অটোভ্যানের সঙ্গে সোহাগদের অটোরিকশার সংঘর্ষ হয়। এতে সোহাগের মাথায় আঘাত লেগে রক্তক্ষরণ হলে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। পরে তাকে পাঠানো হয় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানেও অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলেও মঙ্গলবার মারা যায় সে।

সোহাগের মৃত্যুর ঘটনায় বুধবার মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে নিরাপদ সড়কের দাবি তুলেছেন তার সহপাঠীরা। গোপালপুর-ধনবাড়ী ভায়া পানকাতা সড়কে এ কর্মসূচি পালন করে তারা। এ সময় বক্তব্য দেয় শিক্ষার্থী সজল মিয়া, শরিফ উদ্দিন, মো. রনি, শিপন প্রমুখ।

নিহত সোহাগ মিয়ার বড় ভাই আল-আমিন বলেন, ‘আমার ছোট ভাইয়ের মরদেহ গত মঙ্গলবার বাদ মাহরিব জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে। দুর্ঘটনার পর থেকে অটোভ্যান চালক পলাতক রয়েছে।’

পানকাতা হাতেম আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মেজাম্মেল হোসেন বলেন, মেধাবী শিক্ষার্থী সোহাগ মিয়া ধনবাড়ী উপজেলা সদরে টিকা নিতে যাওয়ার পথে অটো-রিকশা দুর্ঘটনায় আহত হয়ে ঢাকায় মারা যায়। এ ঘটনায় নিন্দা-প্রতিবাদ এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।

এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মতিউর রহমান খান বলেন, বিষয়টি প্রধান শিক্ষক আমাকে অবহিত করেছে এবং মানববন্ধনের বিষয়টিও আমাকে জানিয়েছে। লিখিত অভিযোগ পেলে যথাযথ পর্তৃপক্ষের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ধনবাড়ী থানার ওসি চান মিয়া বলেন, স্কুল শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় কোনো অভিযোগ তারা পায়নি।