চট্টগ্রামে এবারের অমর একুশে বইমেলা শুরু হবে আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের আয়োজনে ১৫ দিনব্যাপী এই বইমেলা নগরের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামের জিমনেসিয়াম সংলগ্ন মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে নগরের টাইগারপাস সিটি করপোরেশন কার্যালয়ে লেখক-প্রকাশকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সিটি মেয়র এম রেজাউল করিম চৌধুরী। যদিও গতবছর প্রস্তুতি নেওয়ার পরও করোনা পরিস্থিতির কারণে বইমেলা অনুষ্ঠিত হতে পারেনি।

সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, চসিকের উদ্যোগে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করে আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামে বইমেলা শুরু করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। তবে পরিস্থিতি বিবেচনায় সরকারের স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত বিধিনিষেধের আলোকে বইমেলা আয়োজনের সার্বিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাতে বইমেলায় ক্রেতা ও পাঠকরা আসতে পারেন, সে প্রস্তুতিও নেবে চসিক।

তিনি বলেন, বইমেলা হলো বইকে উপলক্ষ করে লেখক ও পাঠকের মিলনমেলা। বইমেলা নিয়ে বইপ্রেমী মানুষের মধ্যে আগ্রহ রয়েছে। এছাড়া করোনা অতিমারির কারণে মানুষ বাসায় বন্দি থাকতে থাকতে হাঁপিয়ে উঠেছে। তারা সুযোগ পেলেই বাইরে আসছে। সুতরাং বইমেলা শুরু হলে জনসাধারণের প্রাণের স্পন্দন ও পদচারণায় মুখর হয়ে উঠবে। তবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় যারা বিশ্বাস করে না, তাদের প্রকাশিত বই যাতে মেলায় স্থান না পায়, সে ব্যাপারে দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে হবে।

সভায় বক্তব্য রাখেন সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলম, প্যানেল মেয়র মো. গিয়াস উদ্দিন, শিক্ষা স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি ড. নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, সমাজকল্যাণ স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি আবদুস সালাম মাসুম, কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা লুৎফুন নাহার, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. মাহফুজুর রহমান, সৃজনশীল প্রকাশক পরিষদের সভাপতি মহিউদ্দিন শাহ আলম নিপু, সাধারণ সম্পাদক আলী প্রয়াস, অভিক ওসমান, দেওয়ান মাকসুদ আহমেদ, জামাল উদ্দিন, ওমর কায়সার, রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, শুকলাল দাশ, দিপেন চৌধুরী, মুহাম্মদ শামছুল হক প্রমুখ।

২০১৯ সালে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের আয়োজনে এই সম্মিলিত বইমেলা আয়োজনের উদ্যোগ নেন তৎকালীন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। মেলা আয়োজনে সহযোগিতা করে আসছে চট্টগ্রাম সৃজনশীল প্রকাশক পরিষদ।