অবরোধ প্রত্যাহারের পর শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) একাডেমিক ভবন ও  প্রশাসনিক ভবনসহ সব ভবনের তালা খুলে দিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার বিকেলে তালা খুলে দেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। তবে উপাচার্য পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা।

আন্দেলনরত শিক্ষার্থী ইয়াছির সরকার বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের সম্পদ হলো একাডেমিক ভবন। এই ভবনগুলো খুলে দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও প্রশাসনিক ভবনের তালাসহ সব ভবনের তালা খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে আন্দোলন চালিয়ে যাব আমরা।’

এর আগে বুধবার রাতে অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল ও অধ্যাপক ড. ইয়াসমিন হকের অনুরোধে শিক্ষার্থীরা অবরোধ প্রত্যাহার করার ঘোষণা দেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের গেট খুলে দেন তারা। এছাড়াও উপাচার্যের বাসভবনের সামনে থেকে সরে যান তারা।

ক্যাম্পাসে অবরোধ প্রত্যাহার ও ভবনের তালা খুলে দেওয়া নিয়ে অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম উজ্জ্বল বলেন, ‘গত ১৭ তারিখের পর অফিসে কেউ কেউ আসছেন, কিন্তু কোনো অফিসিয়াল কাজ হয়নি।’

এদিকে বৃহস্পতিবার শাবিপ্রবিতে কেমন ভিসি চাই শীর্ষক এক মুক্ত আলোচনা করেন শিক্ষার্থীরা। সেখানে তারা আলপনা আঁকা, টং দোকান স্থাপন ও আন্দোলনের কর্মসূচি সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেন।

উল্লেখ্য, গত ১৬ জানুয়ারি তিন দফা দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশি হামলার পরদিন সকাল থেকে ক্যাম্পাসে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে দুপুরের দিকে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবনগুলোতে তালা ঝুলিয়ে দেন। এর আগের দিন ক্যাম্পাস বন্ধ ঘোষণা করে পরে তা প্রত্যাহার করা হলেও আবাসিক হলে অবস্থান করেন শিক্ষার্থীরা।