এবার এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় ফলাফলে সন্তুষ্ট না হয়ে বোর্ডে খাতা চ্যালেঞ্জের আবেদন জমা পড়েছে প্রায় ৩০ হাজার। এইসব আবেদনকারীর পুনর্নিরীক্ষার ফল আজ দুপুরের পর প্রকাশ করা হবে। 

রোববার ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান (রুটিন দায়িত্ব) তপন কুমার সরকার সমকালকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, দুপুর নাগাদ এই ফল প্রকাশ করা হবে। পরীক্ষার্থীদের মুঠোফোনে ও শিক্ষাবোর্ডের ওয়েবসাইটে ঢুকে পরিবর্তিত ফল দেখা যাবে।

জানা যায়, ৩০ হাজার আবেদনকারীর মধ্যে শুধুমাত্র ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের ২০ হাজার ৮০০ জন শিক্ষার্থী ফল পুনর্নিরীক্ষার আবেদন করেছেন। এর মধ্যে অনেক পরীক্ষার্থীরা এক বিষয়ে আবার অনেকে একাধিক বিষয়ে।

তবে ঢাকা শিক্ষাবোর্ড সূত্র জানায়, রসায়ন বিষয়ে এককভাবে বেশি পুনর্নিরীক্ষার আবেদন জমা পড়েছে যার সংখ্যা ৩ হাজারের বেশি। গত ২০ ফেব্রুয়ারি আবেদন গ্রহণ শেষ হয়েছে। আজ ১৩ মার্চ ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

শিক্ষা বোর্ডের সংশ্লিষ্টরা জানান, পুনর্নিরীক্ষার জন্য যেসব শিক্ষার্থী যে বিষয়ে আবেদন করবে তাদের উত্তরপত্রের প্রাপ্ত নম্বর ঠিকমতো যোগ করা হয়েছে কি না তা পুনরায় মূল্যায়ন করা হয়ে থাকে। নতুন করে উত্তরপত্র মূল্যায়ন করা হয় না। এতে করেও কারো কারো ফলাফল পরিবর্তন হয়ে থাকে। কেউ আবার ফেল থেকেও জিপিএ-৫ পেয়ে যান।

এবার এইচএসসি-সমমান পরীক্ষায় পাস করেছে ১৩ লাখ ৭১ হাজার ৬৮১ জন। পাসের হার ৯৫ দশমিক ২৬ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ৮৯ হাজার ১৬৯ জন। এর হার শতকরা ১৩ দশমিক ৭৯ শতাংশ।

করোনার কারণে নির্ধারিত সময়ের প্রায় আট মাস পর গত বছরের ২ ডিসেম্বর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছিল। এরপর সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে নেয়া হয় ২০২১ সালের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা।

বিভাগভিত্তিক তিনটি নৈর্বাচনিক বিষয়ের ছয়টি পত্রে এবারের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ফলপ্রকাশের পর ১৪ ফেব্রুয়ারি থেকে এইচএসসি ও সমমানের পুনর্নিরীক্ষার আবেদন শুরু হয়, যা শেষ হয় ২০ ফেব্রুয়ারি।