যথাযোগ্য ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে শুক্রবার রাতে পালিত হয়েছে পবিত্র শবেবরাত। ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা ইবাদত-বন্দেগির মাধ্যমে শবেবরাতের রাত অতিবাহিত করেছেন। আজ শনিবার সরকারি ছুটি।

ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা বিশ্বাস করেন, শবেবরাতের রাতে পরবর্তী এক বছরের ভাগ্য নির্ধারিত হয়। বিশ্বাস করেন, এ রাতে রয়েছে পাপ মোচনের সুযোগ। এ বিশ্বাস থেকে নফল নামাজ, জিকির-আসকারে রাত কাটান। সোমবার মাগরিব থেকে মসজিদে মসজিদে মুসল্লিরা পাঞ্জাবি-পায়জামা পরে দলে দলে আসেন। রাতভর তরুণ-যুবারা দল বেঁধে মসজিদে মসজিদে ঘুরে নামাজ আদায় করেন।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে রাজধানীর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে বাদ এশা থেকে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত, হাম্দ-নাত, ওয়াজ মাহফিল, নামাজ, মিলাদ ও বিশেষ মোনাজাত করা হয়। 

শবেবরাত উপলক্ষে মুসলমানদের মধ্যে হালুয়া-রুটি খাওয়ার রীতি রয়েছে। তৈরি করা হয় বিশেষ রুটি। করোনার কারণে গত বছর শবেবরাতে ঘরের বাইরে বেরুতে মানা ছিল। এবার তেমন বিধিনিষেধ না থাকলেও আগের মতো রাজধানীতে জমজমাট উদযাপন ছিল না শবেবরাতে। কাবাব, হালুয়া-রুটির দোকানে তেমন ভিড় ছিল না।