স্ত্রীকে হত্যার পর দীর্ঘ ২২ বছর ঢাকায় আত্মগোপনে ছিল আনোয়ার হোসেন। এরমধ্যে হত্যার দায়ে তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তবে নাম-পরিচয় গোপন করে সে দিব্যি কাটিয়ে দিয়েছে বছরের পর বছর। 

অবশেষে বুধবার রাতে রাজধানীর খিলক্ষেতের বড়ূয়া বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের এন্টি টেররিজম ইউনিট (এটিইউ) ও দিনাজপুর জেলা পুলিশের যৌথ দল।

এটিইউ'র পুলিশ সুপার (মিডিয়া অ্যান্ড অ্যাওয়ারনেস) মোহাম্মদ আসলাম খান জানান, দিনাজপুরের ফুলবাড়ী থানার হত্যা মামলার আসামি আনোয়ার হোসেন। ২০০০ সালে সে তার দ্বিতীয় স্ত্রী আলতাফুন ওরফে আলতা বেগমকে খুন করে পালিয়ে যায়। এরপর তার আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। 

ঘটনার পাঁচ বছর পর ২০০৫ সালে তার যাবজ্জীবন সাজা হয়। তবে সে সে ছিল পলাতক। দণ্ড মাথায় নিয়েই সে খিলক্ষেত এলাকায় নাম-পরিচয় গোপন করে একটি কাঠ চেরাইয়ের প্রতিষ্ঠানে কাজ করে যাচ্ছিল। গোপন খবরের ভিত্তিতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে অপরাধমূলক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে যুক্ত থাকার কথা স্বীকার করেছে।