দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাখতুম তার সাবেক স্ত্রী প্রিন্সেস হায়া বিনতে আল হুসেইনের ওপর 'অতিমাত্রায় নির্যাতন' চালিয়েছেন বলে রায় দিয়েছেন ব্রিটিশ আদালত। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার লন্ডনের উচ্চ আদালতের বিচারপতি অ্যান্ড্রু ম্যাকফারলেন এ রায় দেন।

আর এ রায়ের মধ্য দিয়ে নিজেদের দুই সন্তানের অভিভাবকত্ব নিয়ে এ দম্পতির দীর্ঘ আইনি লড়াইয়ের অবসান হলো। খবর এএফপির।

আদালতের রায় অনুযায়ী, প্রিন্সেস হায়া এখন থেকে এককভাবে ১৪ বছর বয়সী মেয়ে জালিলা ও ১০ বছর বয়সী ছেলে জায়েদের অভিভাবকত্ব পালন করবেন। তাদের চিকিৎসা ও স্কুলে পাঠানোর দায়িত্বও তিনিই সামলাবেন।

তবে শেখ মোহাম্মদ দূর থেকে ফোন কলের মাধ্যমে সন্তানদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন বলেও রায়ে উল্লেখ করা হয়েছে। 

যুক্তরাজ্যের একটি আদালতে সাবেক স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করেন হায়া। গত বছরের ডিসেম্বরে সাবেক স্ত্রী ও সন্তানদের ভরণপোষণের জন্য প্রায় সাড়ে ৭২ কোটি ডলার পরিমাণ অর্থ পরিশোধ করতে শেখ মোহাম্মদকে নির্দেশ দেন ব্রিটিশ আদালত। তবে সন্তানেরা কার দায়িত্বে থাকবে, তা নিয়ে এ দম্পতির আইনি লড়াই চলছিল।

৪৭ বছর বয়সী প্রিন্সেস হায়া জর্ডানের প্রয়াত বাদশাহ হুসেইন বিন-তালালের মেয়ে। ২০০৪ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রধানমন্ত্রী ও দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল-মাখতুমের সঙ্গে বিয়ে হয় তার। ২০১৯ সালে শরিয়া আইনের অধীন হায়াকে না জানিয়েই তার সঙ্গে বিয়ে বিচ্ছেদ করেন শেখ মোহাম্মদ। দুই সন্তান নিয়ে ২০১৯ সালে দুবাই ছেড়ে যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমান প্রিন্সেস হায়া।