মাদারীপুর সদর উপজেলার ঝিকরহাটি গ্রামে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে দ্বন্দ্বের জেরে সহিংসতায় কাওসার দর্জি (২৩) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। 

স্থানীয়রা জানান, গত ৭ ফেব্রুয়ারি সপ্তম ধাপে ইউপি নির্বাচনে সদর উপজেলার ঘটমাঝি ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এতে তৎকালীন ইউপি সদস্য আলীম দর্জি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে ইকবাল দর্জির কাছে পরাজিত হন। পরাজয়ের পর আলীমের সমর্থকরা কয়েক দফায় নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য ইকবাল দর্জির লোকদের ওপর হামলা ও ভাঙচুর চালায়। এরই ধারাবাহিকতায় আজ সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে আলীমের লোকজন ঝিকরহাটি গ্রামের ইকবালের সমর্থক ইদ্রিস দর্জির বাড়িতে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা ও ভাঙচুর চালায়। এ সময় ইদ্রিস দর্জির ছেলে কাওসার বাধা দিতে এলে তাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে হামলাকারীরা। পরে তাকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের ভাই শামীম দর্জি বলেন, আমরা ইকবাল দর্জির নির্বাচন করেছি। নির্বাচনে হারায় আলীম দর্জির লোকজন আমার বাড়িতে এসে আমার ছোট ভাইকে কুপিয়ে হত্যা করে। আমরা হত্যাকারীর ফাঁসি চাই।

কাওসারের বাবা ইদ্রিস দর্জি আহাজারি করে বলেন, আমার ছেলেকে হাত পা ভাঙলেও ওর মুখ দেখতে পারতাম, ওরা আমার পোলাডারে জানে শেষ করে দিলো। আমি ওদের ফাঁসি চাই।

মাদারীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম মিঞা বলেন, সাবেক ও বর্তমান ইউপি সদস্যের লোকদের মধ্যে সংঘর্ষে এক যুবক নিহত হয়েছেন। নিহতের পরিবার মামলা করলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।