মুন্সিগঞ্জ সদরের একটি বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান ক্লাসে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে এক শিক্ষককে গ্রেপ্তার করে কারাগারে প্রেরণ ও জামিন নামঞ্জুর করায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক)। 

একইসঙ্গে সংস্থাটি ওই শিক্ষকের অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তিসহ তার পরিবারের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছে। বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ দাবি জানায় আসক।

বিবৃতিতে বলা হয়, ২০ মার্চ বিনোদপুর রাম কুমার উচ্চ বিদ্যালয়ের গণিত ও বিজ্ঞান শিক্ষক হৃদয় চন্দ্র মন্ডল দশম শ্রেণির মানবিক শাখার ক্লাস নিচ্ছিলেন। সেখানে একটি বিষয় নিয়ে তার সঙ্গে শিক্ষার্থীদের কয়েকজনের পক্ষে-বিপক্ষে কথোপকথন হয়। একপর্যায়ে এক শিক্ষার্থী ওই কথোপকথন রেকর্ড করে যা পরবর্তীতে এলাকার অন্যদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে হৃদয় চন্দ্র মন্ডলকে স্কুল থেকে শোকজ নোটিশ দেয়া হয়। 

কিন্তু শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ শুরু করে একপর্যায়ে সেখানে স্কুলের শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি বাইরে থেকে এসে লোকজন অংশ নেয় বলে গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ থেকে জানা যায়। 

আরও জানা যায়, স্কুল কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ওই বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী বাদী হয়ে মুন্সিগঞ্জ সদর থানায় উক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে 'ধর্ম অবমাননা'র নামে মামলা করেন। 

শিক্ষক হৃদয়ের পরিবারের অভিযোগ যে উক্ত শিক্ষককে ফাঁসানোর জন্য পরিকল্পিতভাবে তার বিরুদ্ধে 'ধর্ম অবমাননা'র ন্যায় স্পর্শকাতর অভিযোগ আনা হয়েছে। তার পরিবার বর্তমানে চরম ভীতি ও আতংকের মধ্যে রয়েছেন। সামাজিকভাবে হয়রানির ভয়ে ওই শিক্ষকের ছেলে স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে।