গ্যাসের পর এবার বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাবের ওপর ১৮ মে গণশুনানির আয়োজন করবে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)।

গত ফেব্রুয়ারিতে বিদ্যুতের পাইকারি দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব দেয় বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি)। গ্যাসের বর্তমান মূল্য ধরে পিডিবি তার প্রস্তাবে প্রতি ইউনিটের দাম ৬৯ শতাংশ বাড়িয়ে ৮.৫৮ টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে। গ্যাসের দাম ১০০ শতাংশ বৃদ্ধি হলে ৯.১৪ টাকা এবং ১২৫ শতাংশ হারে বৃদ্ধি পেলে ৯.২৭ টাকা করার প্রস্তাব করেছে সংস্থা। বিইআরসি সর্বশেষ ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে বিদ্যুতের পাইকারি দাম ইউনিট প্রতি ৫.১৭ টাকা নির্ধারণ করে। বিতরণ কোম্পনিগুলো এখনো দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দেয়নি। তবে অচিরেই তাদের প্রস্তাব আসবে বলে বিইআরসি সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানিয়েছে, গণশুনানিতে অংশ নিতে আগ্রহী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ২৮ এপ্রিলের মধ্যে নাম তালিকাবদ্ধ করতে হবে।
বিদ্যুতের একক ক্রেতা বিপিডিবি। নিজেরা উৎপাদনের পাশাপাশি বিদেশ থেকে আমদানি ও বেসরকারি মালিকানাধীন বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কাছ থেকে বিদ্যুৎ কিনছে সংস্থাটি। পিডিবি ৫টি বিতরণ কোম্পানির কাছে পাইকারি দরে বিক্রি করে আসছে। আর নিজেরা ময়মনসিংহ, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের শহরাঞ্চলে বিতরণ করে যাচ্ছে।

এদিকে গত মাসে গ্যাসের দাম বৃদ্ধির ওপর গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। এতে গ্যাসের দর গড়ে ১১৭ শতাংশ বাড়ানো আবেদন করে পেট্রোবাংলার ৬ টি বিতরণ কোম্পানি। তবে বিইআরসি কারিগরি মূল্যায়ন কমিটি গ্যাসের দাম ২০ শতাংশ বৃদ্ধির সুপারিশ করে। এ বিষয়ে কমিশন এখনো কোনো সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেনি।