ঢাকার সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কেন্দ্রে করোনাভাইরাসের টিকা নিতে গিয়ে মারধরের শিকার হওয়ার অভিযোগ করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজন শিক্ষার্থী। এ ঘটনার বিচারের দাবিতে প্রায় এক ঘণ্টা ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের শতাধিক আবাসিক ছাত্র। 

মারধরের শিকার দুই শিক্ষার্থী হলেন-বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের মো. ইমন এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের মো. মাজেদ। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৪তম ব্যাচের এবং বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের আবাসিক ছাত্র। আহত অবস্থায় তারা সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

অবরোধকারী শিক্ষার্থীরা বলেন, রোববার বেলা একটার দিকে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কেন্দ্রে টিকা নিতে যান ইমন ও মাজেদ। তারা লাইনে থাকা অবস্থায় বেলা একটায় টিকাদান কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ সময় অপেক্ষারত টিকাপ্রত্যাশীদের অনেকে লাইন শেষ হওয়া পর্যন্ত টিকা দেওয়ার অনুরোধ জানান। টিকাদানকারী স্বাস্থ্যকর্মীরা এতে রাজি না হলে তাদের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে চারজন স্বাস্থ্যকর্মী মিলে ইমন ও মাজেদকে মারধর করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক সূত্র জানায়, এ খবর পেয়ে রোববার সন্ধ্যা সোয়া সাতটা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকসংলগ্ন ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আরিচামুখী সড়কটি অবরোধ করেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের শতাধিক আবাসিক ছাত্র। এ সময় মহাসড়কের দুই কিলোমিটারের বেশি এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে রাত আটটার পরে প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসানসহ প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা সেখানে যান। তারা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলার পর অবরোধ তুলে নেওয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের অভিযোগ শুনেছি। আমরা যথাযথ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে পরবর্তী পদক্ষেপ নেব।’