হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের অভ্যন্তরে হ্যাঙ্গারে ধাক্কায় ক্ষতিগ্রস্ত বিমানের দুইটি উড়োজাহাজ উড্ডয়নের জন্য প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) তাহেরা খন্দকার স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বিমানের দক্ষ প্রকৌশলীদের প্রচেষ্টায় এবং উড়োজাহাজ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান বোয়িংয়ের সহায়তায় স্বল্প সময়ের মধ্যে উড়োজাহাজ দুটিকে উড্ডয়নক্ষম করা হয়েছে। তবে হ্যাঙ্গারে ধাক্কা লাগার বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

গত ১২ এপ্রিল হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকায় হ্যাঙ্গারে ঢোকানোর সময় সংঘর্ষে ক্ষতিগ্রস্ত হয় বোয়িং-৭৩৭ এবং বোয়িং-৭৭৭ নামে বিমানের ২টি উড়োজাহাজ। পরে উড়োজাহাজ দুটি গ্রাউন্ডেড করা হয়। 

বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ রাখার স্থান- হ্যাঙ্গারে আগে থেকেই বোয়িং ৭৭৭ উড়োজাহাজটি রক্ষণাবেক্ষণের জন্য রাখা ছিল। রোববার দুপুরে বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজটিও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য সেখানে নেওয়া হচ্ছিল। বিমানের ওই হ্যাঙ্গারের ভেতরে ঢোকানোর সময় বোয়িং ৭৩৭ এর সামনের অংশের সঙ্গে ভেতরে থাকা ৭৭৭ উড়োজাহাজের পেছনে অংশের ধাক্কা লাগে। এতে বোয়িং ৭৭৭ উড়োজাহাজের সামনের অংশে থাকা ওয়েদার রাডারটি (র‌্যাডম) ভেঙে যায়। আর বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজের পেছনের দিকের ভার্টিকাল স্ট্যাবিলাইজার ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

সাধারণত বিশেষ ধরনের 'পুশকার্ট' দিয়ে বিমানবন্দরের মধ্যে বড় বিমানগুলো এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় নেওয়া হয়। এজন্য বেশ কয়েকজন কর্মী 'পুশকার্ট' চালককে সংকেত দিয়ে সহায়তা করেন। খুবই সতর্কতার সঙ্গে কাজগুলো করা হয়। সেখানে কী করে এমন ঘটনা ঘটল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।