মার্চের শেষ থেকেই শুরুটা হয়েছিল এ বছর। পারদ চড়তে শুরু করেছিল ভারতের উত্তর ও উত্তর-পশ্চিম ভারতে। তাতে গত ১২২ বছরের উষ্ণতম মার্চ দেখেছে ভারত। এপ্রিল থেকে পারদ আরও চড়তে শুরু করে। 

ভারতের সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা ও এনডিটিভি এ তথ্য জানায়।

খবরে বলা হয়, গত কয়েক দিন ধরেই হরিয়ানা, দিল্লি, মধ্যপ্রদেশ ও উত্তরপ্রদেশের বিস্তীর্ণ এলাকায় তীব্র গরম। কোথাও কোথাও তাপমাত্রার পারদ ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসও ছুঁয়েছে। তবে সব রেকর্ড ভেঙে চুরমার হয়ে গিয়েছে উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজে। আজ সেখানে তাপমাত্রা ছিল ৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

গত ২০ বছরে এত উষ্ণ এপ্রিল দেখেনি প্রয়াগরাজ। ১৯৯৯ সালে এপ্রিলে একবার সেখানকার তাপমাত্রা ৪৬.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছেছিল। এপ্রিলেই এত ভয়াবহ গরম আগে টের পাননি শহরবাসী। 

আবহাওয়া দপ্তর জানাচ্ছে, আগামী ৫ মে পর্যন্ত প্রয়াগরাজের তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচে নামবে না। প্রবল গরম থাকবে দিল্লি, হরিয়ানা, মধ্যপ্রদেশ ও উত্তরপ্রদেশের পশ্চিম ভাগেও। 

তবে ২-৪ মে উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, হরিয়ানার কিছু অংশে বৃষ্টি হতে পারে বলেছে আবহাওয়া দফতর। ওই সময়ে ওই সব এলাকার তাপমাত্রা কিছুটা কমে ৩৬ থেকে ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশপাশে থাকবে।

কোনো সমতল এলাকার তাপমাত্রা ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছুঁলে সেখানে তাপপ্রবাহের সতর্কতা জারি করা হয়। পারদ ৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছলে ভয়াবহ তাপপ্রবাহের পরিস্থিতি হয়, যা আজ প্রয়াগরাজে হয়েছে।