মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসের (এমএফএস) গ্রাহকদের কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন এক শ্রেণির প্রতারক। গ্রাহক সচেতন হলেই তার অ্যাকাউন্ট এবং প্রাপ্ত অর্থ দুটিই নিরাপদ রাখা একেবারেই সহজ। এ বিষয়ে কিছু পরামর্শ নিচে উল্লেখ করা হলো :
উপহারের প্রলোভন :কোনো উপলক্ষ সামনে রেখে প্রতারক চক্র উপহার পাবেন বা উপহার জিতেছেন এ রকম প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণার ফাঁদে ফেলতে চেষ্টা করে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম বা সরাসরি মোবাইলে 'উপহার জিতেছেন, আপনি প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাচ্ছেন, বা বড় কোনো কোম্পানি থেকে ঈদ উপলক্ষে আপনাকে টাকা উপহার দেওয়া হবে এমন অসংখ্য তথ্য দিয়ে ফাঁদে ফেলার চেষ্টা করে। এমন কোনো ঘোষণা বা তথ্য দেখলে বা কোনো লিঙ্ক দেখলে তা ক্লিক করা কিংবা কোনো ধরনের তথ্য শেয়ার করা থেকে বিরত থাকা জরুরি। এ ধরনের লিঙ্কে ক্লিক করার পর নাম, ঠিকানা, মোবাইল নম্বরের মতো ব্যক্তিগত তথ্য দিতে বলা হয়ে থাকে। বাস্তবতা হলো, কোনো ধরনের উপহার বা পুরস্কার এমন গড়পড়তা নির্বাচনে বিতরণ করা হয় না। ফলে নিরাপদ থাকতে এগুলো এড়িয়ে যেতে হবে।
উপবৃত্তি ও সরকারি ভাতা :উপবৃত্তির জন্য শিক্ষার্থীর তালিকা সংশ্নিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে সংগ্রহ করেই উপবৃত্তি বিতরণ করা হয়ে থাকে। বিভিন্ন সময় প্রতারক চক্র ভুয়া এসএমএস বা ফোন কলের মাধ্যমে প্রতারণা করার চেষ্টা করে। আপনার সন্তান ডাবল উপবৃত্তি পেয়েছে বা বিশেষ উপবৃত্তি পেয়েছে, উপবৃত্তির টাকা পেতে এই নম্বরে যোগাযোগ করুন- এমন তথ্য দিয়ে কৌশলে এমএফএস অ্যাকাউন্টের পিন এবং ওটিপি নিয়ে প্রতারণা করার চেষ্টা করে তারা। প্রণোদনা, আর্থিক সহায়তা বা অন্য কোনো সরকারি সহায়তার ক্ষেত্রে সুবিধাভোগীর নম্বর নির্ধারিত প্রক্রিয়ায় মাধ্যমে সংগ্রহ করা হয়। উপবৃত্তি বা অন্য যে কোনো ধরনের সহায়তা পেতে ফোনে যোগাযোগ করার প্রয়োজন নেই। তাছাড়া উপবৃত্তি নির্ধারিত এমএফএস অ্যাকাউন্টে যাওয়ার আগেও কোনো খুদেবার্তা যায় না। উপবৃত্তির টাকা পেয়েছেন এমন বার্তা পেলে নির্ধারিত অ্যাকাউন্ট চেক করে নিশ্চিত হওয়া জরুরি। আপনি বা আপনার সন্তান উপবৃত্তি পেয়েছে এমন মেসেজ দেখলে কোনো ধরনের যোগাযোগ করা যাবে না।
অ্যাকাউন্টের সতর্কতা :পিন এবং ওটিপি এগুলো গোপন তথ্য। এগুলো শেয়ার করা যাবে না। অপরিচিত নম্বর থেকে ফোন এলে দীর্ঘক্ষণ কথা না বলে ফোন কেটে দিতে হবে। একটি মোবাইলে ফোন করে অন্য মোবাইল নম্বর নিতে চাইলে কখনোই দেওয়া যাবে না। ভুল করে টাকা চলে গেছে বললে আগে নিজের অ্যাকাউন্টের ব্যালান্স চেক করে নিশ্চিত হতে হবে। কাছের কেউ বিপদে পড়েছেন বলে সহায়তা চাইলে আগে নিজে সত্যতা যাচাই করা জরুরি। কাস্টমার কেয়ার থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে, অ্যাকাউন্ট বন্ধ হয়ে যাবে এমন কোনো তথ্য দিলেও তা বিশ্বাস না করে বরং নিজে কাস্টমার কেয়ারে ফোন করে সত্যতা যাচাই করতে হবে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে খুব পরিচিত কেউও টাকা চাইলে দেওয়ার আগে তার সঙ্গে কথা বলা প্রয়োজন। টাকা দ্বিগুণ হবে, অল্পদামে পণ্য পাওয়া যাবে, চাকরি পাবেন, পুরস্কার পাবেন এমন প্রলোভনেও বিশ্বাস করা যাবে না।