চাঁদাবাজির মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামিকে গ্রেপ্তার করতে গেলে পুলিশের দুই সদস্যকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে রক্তাক্ত করার অভিযোগ উঠেছে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত আসামির নাম শামশুল আলম ওরফে এ টি এম শামসু। তিনি বাহারছড়া ইউনিয়ন যুবলীগের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সম্পাদক ও বাহারছড়ার শীলখালী এলাকার মৃত মোহাম্মদ কালু মিয়ার ছেলে। আহত দুই পুলিশ সদস্য হলেন- বাহারছড়া পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) জামাল মীর ও কনস্টেবল মো. ইমরান।

বাহারছড়া পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের পুলিশ পরিদর্শক নূর মোহাম্মদ সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানিয়েছেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে চাঁদাবাজি মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি ও ইউনিয়ন যুবলীগের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সম্পাদক শামশুল আলমকে (৩৫) গ্রেপ্তার করতে গতকাল রাতে উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর বাজারে যায় পুলিশের একটি দল। সেখানে উপস্থিত হয়ে তাকে গ্রেপ্তার করতে চাইলে শামশুলসহ তার সঙ্গে থাকা লোকজন পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) জামাল মীর ও কনস্টেবল মো. ইমরানকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে রক্তাক্ত করেন। খবর পেয়ে পুলিশ পরিদর্শক নূর মোহাম্মদ ঘটনাস্থলে যান এবং শামশুলকে গ্রেপ্তার করে বাহারছড়া পুলিশ তদন্তকেন্দ্রে নিয়ে আসেন।