প্রাচীনতম আবাসিক গবেষণাকেন্দ্র হিসেবে পরিচিত যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটসে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় মঙ্গলবার পরিদর্শন করেছেন তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমদ পলক। পরিদর্শন শেষে প্রতিমন্ত্রী পলক হার্ভার্ডের দ্বিতীয় প্রাচীনতম ভবন এবং ঐতিহাসিক স্থান ওয়াডসওয়ার্থ হাউসে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিস অব দ্য প্রভোস্ট, ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স শায়রা কচুবায়েভা, হার্ভার্ডের ইমার্জেন্সি মেডিসিনের সহকারী অধ্যাপক সচিত বালসারি লক্ষ্মী মিত্তাল এবং ফ্যামিলি ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক হিতেশ হাথি। আইসিটি বিভাগের এটুআই প্রকল্পের পলিসি অ্যাডভাইজার আনীর চৌধুরী এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সির মহাপরিচালক খাইরুল আমিন।

বৈঠকে যৌথ গবেষণার জন্য আইসিটি বিভাগ ও হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে সহযোগিতার ক্ষেত্রগুলি নির্বাচনে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। প্রতিমন্ত্রী জানান, হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে যৌথ গবেষণা কার্যক্রম হাতে নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আইসিটি বিভাগের একটি একটি সমঝোতা চুক্তি (এমওইউ) শিগগির স্বাক্ষরিত হবে।

বৈঠকে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এবং প্রধানমন্ত্রীর আইসিটিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের তত্ত্বাবধানে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের উপযোগী দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে দেশে স্কুল পর্যায়ে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব প্রতিষ্ঠা, স্কুল অব ফিউচার, ৪৩টি হাইটেক পার্ক, ৬৪টি শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার প্রতিষ্ঠাসহ বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অগ্রগতি তাদের নিকট তুলে ধরেন।

তিনি আরও জানান, গত ১৩ বছরে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে যথাযথ অবকাঠামো গড়ে ওঠার কারণে কোভিডের সময়ে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, কৃষি, বিনোদন, আদালত ও প্রশাসনিক কার্যক্রম চলমান রাখা সম্ভব হয়েছে। ভ্যাকসিন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সুরক্ষা অ্যাপসের মাধ্যমে ভ্যাকসিন কার্যক্রম অত্যন্ত সফলতার সঙ্গে সম্পন্ন করা সম্ভব হয়েছে।

এছাড়াও আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (এমআইটি) পরিদর্শন করেন এবং এমআইটির নির্বাহী পরিচালকের সঙ্গে বৈঠক করেন।