বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহারের পর কাজে যোগ দিয়ে অভিযানের প্রথম দিনের ডিউটিতে বাজিমাত করেছেন পাবনার ঈশ্বরদীর আলোচিত ভ্রাম্যমাণ টিকিট পরীক্ষক (টিটিই) শফিকুল ইসলাম। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে রাত সাড়ে ১২টা পর্যন্ত দায়িত্ব পালনকালে তিনি দুটি ট্রেনের বিনা টিকিটের যাত্রীদের নিকট থেকে প্রায় ৫০ হাজার টাকা রাজস্ব আয় করেন।

খুলনা থেকে চিলাহাটিগামী আন্তনগর রূপসা এক্সপ্রেসের চারজন টিটিই দায়িত্ব পালন করেন। তাদের মধ্যে একজন ভ্রাম্যমাণ টিকিট পরীক্ষকের (টিটিই) দায়িত্ব পালন করেন শফিকুল ইসলাম। এদিন বেলা ১১টা ৫৫ মিনিটে ঈশ্বরদী জংশন স্টেশন থেকে ট্রেনটি চিলাহাটির উদ্দেশে ছেড়ে যায়। তার আগে দায়িত্ব পালনে ট্রেনে ওঠেন শফিকুল।

রেল সূত্রে জানা গেছে, টিটিই শফিকুল ইসলাম চিলাহাটি রেলস্টেশনে পৌঁছে সেখানকার রেলওয়ে বুকিং অফিসে জমা দেন ৯ হাজার ১৯০ টাকা। আর চিলাহাটি থেকে সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনে ফিরে ঈশ্বরদী জংশন স্টেশনের বুকিং অফিসে জমা দেন ৪০ হাজার ৭৬০ টাকা। আপ-ডাউন মিলিয়ে তিনি রাজস্ব আয় করেন ৪৯ হাজার ৯৫০ টাকা।

শফিকুলের সঙ্গে একই ট্রেনে দায়িত্ব পালন করা তার আরেকজন সহকর্মী টিটিই রাজস্ব জমা দিয়েছেন ২৭ হাজার ৩৩০ টাকা। বুধবার সকাল ১১টার দিকে মুঠোফোনে এ তথ্য জানান টিটিই শফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, রূপসা ট্রেনে পৌনে ৬টায় চিলাহাটি পৌঁছাই। আবার সীমান্ত এক্সপ্রেসে ঈশ্বরদীর উদ্দেশে রওনা হয়ে রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ পৌঁছেছি।

টিটিই শফিকুল আরও বলেন, বুধবার খুলনাগামী ডাউন রূপসা এক্সপ্রেস ট্রেনে দায়িত্ব পালন করবেন তিনি। ট্রেনটি দুপুর আড়াইটার দিকে ঈশ্বরদী জংশন স্টেশন থেকে খুলনার উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

বরখাস্তের পাঁচ দিন পর এবং বরখাস্ত আদেশ প্রত্যাহারের দুই দিন পর মঙ্গলবার ট্রেনে টিকিট চেকিংয়ের মাধ্যমে নিয়মিত দায়িত্ব পালন শুরু করেন টিটিই শফিকুল ইসলাম। দায়িত্ব পালনের দ্বিতীয় দিনেও তাকে বেশ উচ্ছ্বসিত দেখা গেছে। এর আগে গত রোববার দুপুরে আলোচিত এই ঘটনায় তদন্ত কমিটির কার্যক্রমের শুরুতেই টিটিই শফিকুল ইসলামের বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করা হয়।

এদিন টিটিইর বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করে তাকে স্বপদে বহাল করেন পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের ব্যবস্থাপক শাহীদুল ইসলাম। একইসঙ্গে তিনি বরখাস্তকারী পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (ডিসিও) নাসির উদ্দিনকে শোকজ করেন। তাকে আগামী সাত দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে।

উলে­খ্য, ৫ মে রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনের স্ত্রী শাম্মি আক্তার মনির তিন আত্মীয় বিনা টিকিটে ট্রেনে ভ্রমণ করায় তাদরেকে জরিমানাসহ ভাড়া আদায় করেন টিটিই শফিকুল ইসলাম। এজন্য তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলে সারাদেশে সমালোচনার ঝড় ওঠে।