সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আগামী জুনে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। সময় চেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে সারসংক্ষেপ পাঠানো হবে। সরকার প্রধান জুন মাসের যে দিন সময় দেবেন, সেদিনই উদ্বোধন করা হবে। সারসংক্ষেপে শেখ হাসিনার নামে পদ্মা সেতুর নামকরণের প্রস্তাব করা হবে।

বুধবার রাজধানীর বনানী সেতু ভবনে সেতু কর্তৃপক্ষের ১১১তম বোর্ড সভায় শেষে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের।

আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ২৩ জুন সেতুর উদ্বোধন করা হবে বলে যে গুঞ্জন রয়েছে তা নাকচ করে দলটির সাধারণ সম্পাদক বলেন, সেতুমন্ত্রী হিসেবে আমি দায়িত্ব নিয়ে বলছি, ২৩ জুন নয়, জুনের শেষে পদ্মা সেতু উদ্বোধন হবে।

গত এপ্রিলে সংসদে প্রধানমন্ত্রী জানান, ৩০ হাজার ১৯৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ছয় দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ নির্মাধানী পদ্মা সেতু ২০২২ সালের শেষ নাগাদ চালু করতে দ্রুতগতিতে কাজ এগিয়ে চলেছে। এ বক্তব্যের পর প্রশ্ন তৈরি হয়, জুনে নাকি ডিসেম্বরে সেতু চালু হবে। ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ধোঁয়াশার কিছু নেই। সেতুর অল্প কিছু কাজ বাকি। যা চলতি মে মাসে শেষ হবে।

সেতুমন্ত্রী জানান, সংসদসহ বিভিন্ন মহল থেকে প্রধানমন্ত্রীর নামে পদ্মা সেতুর নামকরণের দাবি এসেছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী রাজি হচ্ছেন না। তবে তার নামেই সেতুর নামকরণের প্রস্তাব পাঠানো হবে। প্রধানমন্ত্রীর কাছে সেতুর প্রস্তাবিত টোল হার পাঠানো হয়েছে। তিনি অনুমোদন দিলে এটি চূড়ান্ত হবে।

ওবায়দুল কাদের জানান, কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু টানেলের ৮৫ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। আগামী ডিসেম্বর নাগাদ টানেল উদ্বোধন সম্ভব হবে বলে আশাবাদী তিনি।