বিমানের হ্যাঙ্গারে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের দুটি উড়োজাহাজের ধাক্কা ও ক্ষয়ক্ষতির ঘটনায় অবশেষে সংস্থাটির প্রধান (প্রিন্সিপাল) প্রকৌশলীসহ পাঁচজনকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। তারা হলেন বিমানের প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ বদরুল ইসলাম, প্রকৌশলী মো. মাইনুল ইসলাম, সৈয়দ বাহাউল ইসলাম, সেলিম হোসেন খান এবং জিএসই অপারেটর মো. হাফিজুর রহমান।

বুধবার রাতে বিমান কর্মকর্তারা জানান, সম্প্রতি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বিমানের হ্যাঙ্গারে দুই উড়োজাহাজের ধাক্কার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দীর্ঘ তদন্ত শেষে দায়ী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেয় কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় সাময়িক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এ ব্যপারে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের মহাব্যবস্থপাক (জনসংযোগ) তাহেরা খন্দকার কর্মকর্তাদের বরখাস্তর করার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি সমকালকে বলেন, এসব কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তদন্ত শেষে স্থায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিমান কর্মকর্তারা আরও জানান, ১০ এপ্রিল ঢাকা বিমানবন্দর বিমানের হ্যাঙ্গারে (উড়োজাহাজ রক্ষণাবেক্ষণের স্থান) একটি বোয়িং-৭৩৭ উড়োজাহাজ বের করার সময় আগে থেকে সেখানে থাকা আরেকটি বোয়িং-৭৭৭ উড়োজাহাজকে ধাক্কা দেয়। এ সময় দুটি উড়োজাহাজই বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এর মধ্যে বোয়িং-৭৭৭ উড়োজাহাজের সামনের অংশে থাকা আবহাওয়ার বার্তা ধরার যন্ত্র র‌্যাডম ভেঙে যায়। আর বোয়িং-৭৩৭ উড়োজাহাজের লেজের হরাইজন্টাল স্ট্যাবিলাইজার ভেঙে যায়। এ ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে পরদিন ১১ এপ্রিল ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী।

ঘটনার দু'দিন পর ১৩ এপ্রিল চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়। সাত কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছিল তাদের। এ ব্যপারে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমডি ও সিইও ড, আবু সালেহ্‌ মোস্তফা কামাল সমকালকে জানান, ঘটনার সঙ্গে জড়িত দায়ী কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়।