করোনা পরিস্থিতে মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিদেশগামী সাধারণ যাত্রীদের কোভিড-১৯ নেগেটিভ সনদ অত্যন্ত জরুরি অনুষঙ্গে পরিণত হয়েছে। করোনা নেগেটিভ সনদ প্রদর্শন ছাড়া বিদেশ যেতে পারবেন না কেউ। মধ্যপ্রাচ্যে কর্মরত বাংলাদেশি যারা দেশে এসে ফের বিদেশ যেতে চান তাদের ঘিরে গড়ে উঠেছে সনদ প্রতারক চক্র। তাদের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে করোনা নেগেটিভ সনদ দেওয়ার নামে প্রতারণার অভিযোগে চক্রের সাত সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১।

রোববার বনানীর মহাখালী থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এসময় তাদের কাছ থেকে ভুয়া কোভিড-১৯ পরীক্ষার পজেটিভ এবং নেগেটিভ সনদ ফটোকপি জব্দ করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিরা হলেন সুনামগঞ্জের জসিম উদ্দিন (২৮), নোয়াখালীর তারেকুল ইসলাম (২৬), মৌলভীবাজারের আলমগীর হোসেন (২০) ও আহম্মেদ হোসেন শাহাদাত (১৮), কুড়িগ্রামের রিপন মিয়া (২৮), বান্দরবনের আরিফুল ইসলাম (২০) এবং ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার শামীম হোসেন (৩০)।

র‌্যাব জানিয়েছে, চক্রটি প্রত্যেক যাত্রীর কাছ থেকে করোনা নেগেটিভ সনদের নামে ১০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে বিভিন্ন অংকের টাকা মোবাইল ব্যাংকিয়ের মাধ্যমে হাতিয়ে নিয়েছে।

র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃতরা জানিয়েছেন, তার বিদেশগামী যাত্রীদের কাছে নিজেদের কোভিড-১৯ হাসপাতালের চিকিৎসক, স্টাফ ও নার্স পরিচয় দিয়ে বিশ্বস্ততা অর্জন করতেন। পরবর্তীতে যাত্রীদের কোভিড-১৯ এর ভুয়া নেগেটিভ সনদ সরবরাহ করতেন টাকার বিনিময়ে।