বাগেরহাটের চিতলমারীতে কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যার দায়ে কালিম শেখ (৩০) নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে আদালত আসামিকে এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ প্রদান করেন।

সোমবার দুপুরে বাগেরহাট নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১- এর বিচারক মো. এসএম সাইফুল ইসলামের আদালত এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত কালিম শেখ চিতলমারী উপজেলার বড়বাড়িয়া মধ্যপাড়া গ্রামের ঠান্ডা শেখের ছেলে। রায় ঘোষণার সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ১৮ মে বিকেলে প্রতিবেশী কালিম শেখ তালের শাঁস খাওয়ানোর কথা বলে কিশোরীকে ডেকে নেন। বড়বাড়িয়া মধ্যপাড়ার নাজির শেখের পরিত্যক্ত বাড়িতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন তিনি। পরদিন ভোরে কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ১৯ মে রাতে ওই কিশোরীর বাবা আব্দুল কাদের বাদী হয়ে কালিমকে আসামি করে চিতলমারী থানায় একটি মামলা করেন।

তদন্ত শেষে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই একরাম হোসেন একই বছর ৩০ সেপ্টেম্বর চারজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট জমা করেন। পরে মামলার দীর্ঘ শুনানি ও সাক্ষীদের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত কালিমকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও বাকী তিনজনকে খালাস প্রদান করেন।

রাষ্ট্রপক্ষের কৌশুলি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, অপরাধীদের জন্য এই রায় দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।