বাস্তব শিক্ষার সঙ্গে শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ত করতে শিক্ষকদের আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। মঙ্গলবার রাজধানীর সরকারি টিচার ট্রেনিং কলেজে অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু ‘সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ’ এর জাতীয় পর্যায়ে প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ আহ্বান জানান।   

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা উপমন্ত্রী বলেন, ‘তত্ত্বীয় জ্ঞানের চেয়ে ব্যহারিক শিক্ষাকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে শিক্ষার্থীদের প্রায়োগিক শিক্ষার মানসিকতা তৈরি করতে হবে। শিক্ষার্থীদের সৃজনশীল হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। বাস্তব শিক্ষার সঙ্গে শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ত করতে হবে।’ 

মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের স্বার্থে সৃজনশীলতার সঙ্গে পরিচয় করাতে হবে। শিক্ষার্থীদের বাস্তাব জীবনের সঙ্গে কাজ করার মানসিকতাই তৈরি হয়নি। আমরা তত্ত্বীয় জ্ঞানের উপর এতো জোর দিচ্ছি যে, বাস্তবে কোনো কাজ করার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা নিরুৎসাহিত হয়ে যাচ্ছে। তারা মনে করছে, কৃষি কাজসহ কায়িক পরিশ্রমের কাজ হচ্ছে অশিক্ষিত লোকের কাজ। যেহেতু সে শিক্ষিত হয়ে গেছে সেহেতু সে এসব কাজ করবে না। কিন্তু শিক্ষার্থীর লদ্ধ জ্ঞানকে ব্যবহার করার মাধ্যমে উদ্ভাবন করতে পারে। শিক্ষিত কোনো ব্যক্তি ব্যবসায় সৃজনশীলতা কাজে লাগালে সেই আইডিয়া বাস্তবায়ন করতে পারবে। তাই শিক্ষকদের প্রতি অনুরোধ থাকলো শিক্ষার্থীর সৃজনশীলতা ব্যবহারে উপযুক্ত করতে হবে।’ 

শিক্ষার্থীদের উন্মুক্ত ও বিজ্ঞান মনস্ক করার আহ্বান জানিয়ে উপমন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থী, কুপমন্ডুকতা, জড়তা, অতিমাত্রায় প্রতিক্রিয়াশীলতার  মধ্যে ঢুবে থাকা এবং কুসংস্কার, ধর্মীয় অপব্যখ্যা, নারী-পুরুষের মধ্যে অসমতার প্রতি শিক্ষার্থীদের মনোযোগ চলে যায় সৃজনশীল চর্চার অভাবে। আমরা বাস্তবের সঙ্গে শিক্ষার সম্পর্কটা অগ্রায্য করছি। এ কারণে শিক্ষকদের আমি অনুরোধ করবো জাতির পিতা যে দক্ষতা নির্ভর জনগোষ্ঠী করতে চেয়েছিলেন শিক্ষার্থীদের সেই বাস্তব শিক্ষার সঙ্গে সম্পৃক্ত করে  দক্ষতা নির্ভর জনগোষ্ঠী গেড়ে তুলতে হবে। 

এদিন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ। এছাড়া সংশ্লিষ্টরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।