অন্যান্য বছর শীত মৌসুমে সবজির দাম তুলনামূলক কম থাকলেও ছিল না এবার। ভর মৌসুমেও সব ধরনের সবজি বেশি দামে কিনতে বাধ্য হয়েছেন ক্রেতারা। সবজির বাজারে দাম এখনও চড়া। মাঝে কয়েক দিন কমলেও গত চার-পাঁচ দিনের ব্যবধানে কয়েকটি সবজির দাম কেজিতে ১০ থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। কোনোটির দাম শতক ছুঁয়েছে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, বাজারে অন্যান্য নিত্যপণ্যের দাম বাড়ার কারণে এর প্রভাব পড়েছে সবজির বাজারে। এ ছাড়া সম্প্রতি বৃষ্টির কারণে মাঠে কিছু সবজি নষ্ট হয়েছে। দাম বাড়ার এটিও একটি কারণ হতে পারে। ভোক্তারা বলছেন, একের পর এক নিত্যপণ্যের দাম বেড়ে যাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষের দুশ্চিন্তা বাড়ছে। আয়ের সঙ্গে ব্যয়ের হিসাব মেলাতে হিমশিম খাচ্ছেন তাঁরা। কখনও কখনও তাঁরা চাহিদার তুলনায় ভোগের পরিমাণ কমাতে বাধ্য হচ্ছেন।


রাজধানীর মহাখালী কাঁচাবাজারে সবজি কিনতে আসা ইরফান আলী বলেন, তিনি পেশায় দিনমজুর। দিনে আয় করেন ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা। দুই কেজি সবজি আর এক লিটার তেল কিনলেই ৪০০ টাকা শেষ। চাল কেনার পয়সা আর থাকে না।
বাজারে সরকারের নিয়ন্ত্রণ না থাকায় সবজির দাম বাড়ছে বলে অভিযোগ করেন কারওয়ান বাজারে সবজি কিনতে আসা শাহ আলম। রাজধানীর ইস্কাটন এলাকার এই বাসিন্দা বলেন, সবজি তো আমদানি করা হয় না। দেশেই উৎপাদন হয়। তাহলে এগুলোর দাম বাড়বে কেন? অন্যান্য জিনিসের দাম বাড়ার কারণে সবজি ব্যবসায়ীরাও পরিস্থিতির সুযোগ নিচ্ছেন।

গতকাল শুক্রবার রাজধানীর কয়েকটি বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গাজর, বরবটি ও কাঁকরোল- এই তিনটি সবজির দাম শতক ছুঁয়েছে। এ ছাড়া অন্যান্য সবজি কিনতে ক্রেতাকে গুনতে হচ্ছে ৪০ থেকে ৭০ টাকা।

কারওয়ান বাজারের সবজি বিক্রেতা দুলাল হোসেন বলেন, বাজারে অন্যান্য জিনিসের দাম বেড়েছে। এ কারণে প্রায় সব ধরনের সবজির দাম বেড়েছে। এ ছাড়া বৃষ্টির কারণে কিছু সবজি নষ্ট হয়েছে। এ কারণে ব্যাপারীরা সবজি কম আনছেন ঢাকায়। বাজারে সবজি কম থাকলে দাম বেড়ে যায়।
গত চার-পাঁচ দিনের ব্যবধানে মানভেদে গাজর কেজিতে ৩০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১০০ টাকায়। ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি বিক্রি হওয়া বরবটি ও কাঁকরোলের দাম ২০ থেকে ৩০ টাকা বেড়ে এখন বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১০০ টাকায়। এ ছাড়া এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে ১০ টাকা বেড়ে করলা ও বেগুনের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৮০ টাকা। টমেটোর মৌসুম শেষ হয়ে যাওয়ায় সবজিটির দাম কেজিতে ১০ টাকা বেড়েছে। প্রতি কেজি টমেটো কিনতে লাগছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা।

এক সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বাড়ার তালিকায় উঠে এসেছে ঢ্যাঁড়শ, চিচিঙ্গা, পটোল, ঝিঙ্গেসহ আরও কয়েকটি সবজি। এসব সবজিতে গড়ে ১০ টাকা করে দাম বেড়েছে। বাজারে প্রতি কেজি ঢ্যাঁড়শ ৪০ থেকে ৫০ টাকা, পটোল ৫০ থেকে ৬০ টাকা, ঝিঙ্গে ৫৫ থেকে ৬৫, চিচিঙ্গা ৫০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে কাঁচা পেঁপের দাম কেজিতে ২০ টাকার মতো কমেছে। গত সপ্তাহে সবজিটি ৮০ থেকে ৯০ টাকায় বিক্রি হলেও এখন কেনা যাচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকায়।

গত সপ্তাহে বেড়ে যাওয়া দামেই বিক্রি হচ্ছে আদা ও রসুন। দেশি রসুনের কেজি ৯০ থেকে ১০০ টাকা, আমদানি করা রসুন ১৪০ থেকে ১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আমদানি করা আদা ১২০ থেকে ১৩০ এবং দেশি আদা ৯০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে সপ্তাহের ব্যবধানে কিছুটা কমেছে পেঁয়াজের দাম। ৪৫ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হওয়া পেঁয়াজের কেজি এখন বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৪৫ টাকায়।