চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে গবেষক সম্মেলন। উচ্চশিক্ষা ও গবেষণাকে গুরুত্ব দিয়ে প্রখ্যাত বিজ্ঞানী, গবেষক ও গণিতবিদ অধ্যাপক ড. জামাল নজরুল ইসলাম স্মরণে দেশে প্রথমবারের মতো আয়োজিত সম্মেলনে ৭৫টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫২৪ তরুণ গবেষক অংশগ্রহণ করেন। তাদের নিবন্ধ মূল্যায়ন করতে ও বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিতে বিশেষজ্ঞ হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ১২০ অধ্যাপক-শিক্ষক। সব মিলিয়ে শনিবার এই ক্যাম্পাস তরুণ ও প্রবীণ গবেষকের মিলনমেলায় পরিণত হয়।

চবির ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদ মিলনায়তনে সকাল ১০টায় 'প্রথম জামাল নজরুল ইসলাম জাতীয় তরুণ গবেষক সম্মেলন-২০২২' শুরু হয়। এতে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। দুপুর ১২টায় আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন প্রধান অতিথি চবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চবি উপ-উপাচার্য অধ্যাপক বেনু কুমার দে, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড. নাসিম হাসান, ইউজিসি সদস্য অধ্যাপক মুহাম্মদ আলমগির, ড. জামাল নজরুল ইসলামের মেয়ে সাদাফ সিদ্দিকি ও নারগিস ইসলামসহ শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বোর্ড মেম্বার গবেষক ড. সেঁজুতি সাহা, স্পটলাইট স্পিকার ছিলেন বুয়েটের সাবেক অধ্যাপক ও ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আইনুন নিশাত, স্মারক বক্তৃতায় প্রধান আলোচক ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক আরশাদ মোমেন।

কল্পনা ও উদ্ভাবনের পথে আগামী প্রজন্ম প্রতিপাদ্যে সম্মেলনে পদার্থবিজ্ঞান ও প্রকৌশল, জীববিজ্ঞান, পরিবেশবিজ্ঞান, কৃষি ও উদ্ভিদ, স্বাস্থ্য ও চিকিৎসাবিদ্যা, সমাজবিজ্ঞান, মানববিদ্যা এবং বাণিজ্য শাখায় স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের শিক্ষার্থী-তরুণ গবেষকরা অংশ নেন। তাদের মধ্যে চবির ছিলেন ৭৪ জন। এ সময় গবেষণায় ছয়টি ক্যাটাগরিতে ১৮ এবং গবেষণা আইডিয়ায় ৭ ক্যাটাগরিতে ২১ জনকে পুরস্কার দেওয়া হয়।