মানিকগঞ্জের শিবালয়ে যমুনা নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হওয়া পোশাক কারখানার এক কর্মকর্তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার দুপুরে স্থানীয় লোকজন নদীতে ভাসমান অবস্থায় তার মৃতদেহ দেখতে পায়। খবর পেয়ে পাটুরিয়া নৌ-থানার পুলিশ এসে মরদেহটি উদ্ধার করে। গত শুক্রবার নদীতে নেমে নিখোঁজ হন তিনি।

মারা যাওয়া ওই কর্মকর্তার নাম আশ হাবিব (৪৩)। তিনি ঢাকার আশুলিয়ার ঘোষবাগ এলাকায় অবস্থিত নাসা গ্রুপের  মহাব্যবস্থাপক। তার গ্রামের বাড়ি বগুড়া শহরের ফুলবাড়ি এলাকায়। স্ত্রী ও ১০ বছরের ছেলেকে নিয়ে তিনি সাভারের রেডিও কলোনি এলাকায় থাকতেন।

নৌপুলিশ, ফায়ার সার্ভিস এবং মারা যাওয়া ব্যক্তির পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ফেসবুকে শিবালয়ের জাফরগঞ্জ এলাকায় নদী ও প্রাকৃতিক দৃশ্যের ছবি দেখে হাবিব সেখানে বেড়াতে যাওয়ার পরিকল্পনা করেন। গত শুক্রবার ছুটির দিন থাকায় তিনি ব্যক্তিগত গাড়িতে স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে সেখানে বেড়াতে যান। বেলা তিনটার দিকে তিনি স্ত্রী শামীমা নাসরিন ও ছেলে অহনকে যমুনা নদীর তীরে বসিয়ে রেখে নদীতে গোসল করতে নামেন। একপর্যায়ে তিনি নদীতে ডুবে যান। এর পর  শনিবার সকাল সাতটা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত জাফরগঞ্জ ও এর আশপাশের যমুনা নদীতে ফায়ার সার্ভিস ও নৌ পুলিশের ডুবুরি দলও তাকে উদ্ধারে অভিযান চালায়। তবে নিখোঁজ হাবিবের সন্ধান পাওয়া যায়নি। রোববার বেলা ১১টার দিকে ঘটনাস্থল জাফরগঞ্জ এলাকায় এক ব্যক্তির লাশ ভেসে ওঠলে স্থানীয় লোকজন মরদেহটি নদীর তীরে টেনে আনেন।  খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে পাটুরিয়া নৌ-থানার পুলিশ।

বেলা একটার দিকে পাটুরিয়া নৌ-থানার ওসি আবু বকর সিদ্দিক বলেন, স্বজনদের দেওয়া ছবি দেখে লাশের পরিচয় শনাক্ত করা হয়েছে। মারা যাওয়া ব্যক্তির স্বজনদের খবর দেওয়া হয়েছে। তারা ঘটনাস্থলে আসছেন। প্রয়োজনীয় আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।