বিদ্যুৎ বিভাগের আওতাধীন ছয়টি সরকারি বিদ্যুৎ উৎপাদন কোম্পানির মধ্যে পাঁচটিই রয়েছে লাভে। অন্য একটি কোম্পানি লোকসানে আছে, তবে সেটি এখনও বাণিজ্যিক উৎপাদনে যায়নি। এ কারণে এটি লোকসানে।

রোববার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানায়।

সংসদীয় কমিটির বৈঠকে ছয়টি কোম্পানির গত তিন অর্থবছরের আয়-ব্যয়ের হিসাব উপস্থাপন করে বিদ্যুৎ বিভাগ। তাতে দেখা যায়, ছয়টি সরকারি বিদ্যুৎ উৎপাদন কোম্পানির মধ্যে নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি লিমিটেড গত ২০২০-২১ অর্থবছরে ৯৩১ কোটি ৮৬ লাখ টাকা; আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানি ২৪৬ কোটি ৮৭ লাখ টাকা; রুরাল পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড ২৫৪ কোটি ৩৫ লাখ টাকা; ইলেক্ট্রিসিটি জেনারেশন কোম্পানি বাংলাদেশ ১৩২ কোটি টাকা এবং বি-আর পাওয়ারজেন লিমিটেড ৮৪ কোটি ৫৬ লাখ টাকার বেশি মুনাফা করেছে। এই পাঁচটি কোম্পানি গত তিন অর্থবছরই লাভে ছিল। এর বাইরে কোল পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি বাংলাদেশ গত অর্থবছরে ২৩ কোটি ২১ লাখ টাকা লোকসান দিয়েছে। বিদ্যুৎ বিভাগ বলেছে, কোল পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানি এখনও বাণিজ্যিক উৎপাদনে না যাওয়ায় মুনাফা অর্জন করতে পারেনি।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি ওয়াসিকা আয়শা খান বলেন, কমিটি সরকারি বিদ্যুৎ উৎপাদন কোম্পানিগুলোর মুনাফার বিষয়ে জানতে চেয়েছিল। মন্ত্রণালয় সেটি জানিয়েছে। এ ছাড়া বাংলাদেশ জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কাউন্সিলের (বিইপিআরসি) কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা হয়েছে। কমিটি তাদের জন্য বাজেট বাড়াতে বলেছে।