গ্রামীণ টেলিকমের চাকরিচ্যুত ১৭৬ জন শ্রমিককে পাওনা বাবদ ৪০০ কোটি টাকা দিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির মালিক নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস। এ কারণে গ্রামীণ টেলিকমের অবসায়ন চেয়ে শ্রমিকদের করা মামলা প্রত্যাহারের আবেদন মঞ্জুর করেছেন হাইকোর্ট। 

বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের একক হাইকোর্ট (কোম্পানি) বেঞ্চে সোমবার এই আদেশ দেন।

এর আগে শ্রমিকদের আইনজীবী ইউসুফ আলী হাইকোর্টকে জানান, গ্রামীণ টেলিকমের ১৭৬ শ্রমিকের পাওরা ৪০০ কোটি টাকা ড. ইউনূসের প্রতিষ্ঠান থেকে পরিশোধ করা হয়েছে। তারা আর কোম্পানি অবসায়ন চেয়ে করা মামলাটি চালাতে চান না।

বকেয়া পাওনা পরিশোধ না করায় ২০১৬ সালে গ্রামীণ টেলিকমের বিরুদ্ধে মামলা করেন সাবেক ১৪ কর্মী। পরে বকেয়া পরিশোধ চেয়ে ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে ৯৩টি মামলা করেন তার প্রতিষ্ঠানের বর্তমান কর্মীরা। ফলে ঢাকার শ্রম আদালতে তার বিরুদ্ধে সব মিলিয়ে ১০৭টি মামলা দায়ের হয়। 

এরই একটি মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন (বি-২১৯৪) সিবিএ'র সঙ্গে আলোচনা না করেই নোটিশের মাধ্যমে গ্রামীণ টেলিকমের ১০০ কর্মীকে ছাঁটাই করেন ড. ইউনূস। গ্রামীণ টেলিকম ব্যবস্থাপনা পরিচালক আশরাফুল হাসান স্বাক্ষরিত নোটিশের মাধ্যমে এই ছাঁটাই করা হয়।

ওই নোটিশের বিরুদ্ধে আবেদন করা হলে ওই ১০০ কর্মীকে নিয়োগ দিতে আদেশ দেন হাইকোর্ট। এরই মধ্যে গত ৭ ফেব্রুয়ারি গ্রামীণ টেলিকমের অবসায়ন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন গ্রামীণ টেলিকমের শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন; যার ধারাবাহিকতায় পাওনা পরিশোধ করে বিষয়টি নিষ্পত্তি করে গ্রামীণ টেলিকম।