বিশ্বজুড়ে অর্থনৈতিক সংকটের তাপ লেগেছে দেশের আর্থিক খাতে। অথচ দীর্ঘ পাঁচ মাস পর অনুষ্ঠিত অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এ বিষয়ে কোনো আলোচনাই হয়নি। গতকাল সোমবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে 'পেমেন্ট অ্যান্ড সেটেলমেন্ট সিস্টেমস বিল, ২০২২'-এর ওপর আলোচনার পর বৈঠক শেষ করা হয়েছে। তবে বিলের ওপর কোনো সুপারিশও করা হয়নি।

বৈঠক শেষে সংসদ সচিবালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিলের ওপর আলোচনার কথা জানিয়ে বলা হয়েছে- 'পরবর্তী বৈঠকে অধিকতর পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।' একাদশ জাতীয় সংসদের অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির নবম বৈঠক গতকাল অনুষ্ঠিত হয়। এতে কমিটির সভাপতি আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সভাপতিত্বে অংশ নেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, আব্দুস শহীদ, মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী, আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী এবং আহমেদ ফিরোজ কবির। এ ছাড়া বিশেষ আমন্ত্রণে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম অংশ নেন।

যদিও ১০ সদস্যের এই কমিটিতে অন্য সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন আওয়ামী লীগদলীয় সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য বেগম রুমানা আলী, সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির রানা মোহাম্মদ সোহেল এবং বিএনপিদলীয় সদস্য হারুনুর রশিদ। তবে তারা গতকালের বৈঠকে অংশ নেননি।

কার্যপ্রণালি বিধিতে প্রতিমাসে নূ্যনতম একটি করে বৈঠক হওয়ার বাধ্যবাধকতা থাকলেও এই কমিটি সর্বশেষ বৈঠকে বসেছিল গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর। সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তারা অবশ্য জানিয়েছেন, কভিড পরিস্থিতির কারণে বেশিরভাগ সংসদীয় কমিটির নিয়মিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে পারেনি। কয়েকটি কমিটি অবশ্য স্পিকারের অনুমতি নিয়ে ভার্চুয়াল মিটিংয়ে অংশ নিয়েছে।

সংসদ সচিবালয় সূত্র জানিয়েছে, কমিটির বৈঠকের আলোচ্যসূচিতে বিল ছাড়াও গত বৈঠকের কার্যবিবরণী নিশ্চিতকরণ ও বিবিধ আলোচনা নির্ধারিত ছিল। বৈঠক সূত্র জানিয়েছে, গতকালের বৈঠকে বিল ছাড়া অন্য কোনো ইস্যু আলোচিত হয়নি।
অর্থনীতিতে অস্থিরতা নিয়ে নানা মহলে আলোচনা চললে সংসদীয় কমিটির বৈঠকের আলোচ্যসূচিতে এ বিষয়টি ছিল না। বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি আবুল হাসান মাহমুদ আলী উপস্থিত সাংবদিকদের কোনো বক্তব্য দিতে রাজি হননি। সাংবাদিকরা বক্তব্য জানতে এই কমিটির সদস্য অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, তিনি কিছু বলতে চান না। বৈঠকে আলোচনার বিষয়ে বলার এখতিয়ার কমিটির সভাপতির।
সংসদের কার্যপ্রণালি বিধি অনুযায়ী, মন্ত্রণালয়ভিত্তিক সংসদীয় কমিটির কাজ সংসদ থেকে পাঠানো যে কোনো বিল বা বিষয় পরীক্ষা করা এবং কমিটির আওতাধীন মন্ত্রণালয়ের কাজ পর্যালোচনা করা। মন্ত্রণালয়ের কাজ বা অনিয়ম ও গুরুতর অভিযোগ তদন্ত করা এবং কমিটি যথোপযুক্ত মনে করলে কমিটির আওতাধীন যে কোনো বিষয় সম্পর্কে পরীক্ষা করা ও সুপারিশ করা।

বৈঠক সূত্র জানায়, গতকালের বৈঠকে আলোচিত বিলটি সংসদের বৈঠকে উত্থাপনের সময় আপত্তি জানিয়েছিলেন জাতীয় পার্টির সদস্য ফখরুল ইমাম। পরে বিলটি পরীক্ষা করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো হয়।
বৈঠকে বিশেষ আমন্ত্রণ পাওয়া ফখরুল ইমাম বিলের একটি ধারা নিয়ে আপত্তি জানান। ওই ধারায় আইনস্বীকৃত মুদ্রার বিকল্প হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক প্রবর্তিত ইলেকট্রনিক মুদ্রার কথা বলা হয়েছে। তবে ফখরুল ইমামকে বৈঠকে আমন্ত্রণ জানানোর কারণে কমিটির অপর একজন সদস্য আপত্তি তোলেন এবং অসন্তোষ প্রকাশ করেন। ওই সদস্য বলেন, কার্যপ্রণালি বিধি অনুযায়ী, সংসদীয় কমিটি বৈঠকে কাউকে বিশেষ আমন্ত্রণ জানানোর সুযোগ রয়েছে। কিন্তু বৈঠকের কাজ শুরু হলে কমিটির সদস্যরা ছাড়া অন্য কেউ উপস্থিত থাকার সুযোগ নেই। তবে কমিটির সভাপতি দ্বিমত পোষণ করে বলেন, বিশেষ আমন্ত্রিত কেউ বৈঠকে থাকতে অসুবিধা নেই।