আইনজীবীদের নিয়ন্ত্রকারী সংস্থা বাংলাদেশ বার কাউন্সিল নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে বুধবার। 

এদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত সারাদেশে ৯৩ কেন্দ্রে ১৬৪ বুথে একযোগে ভোটগ্রহণ করা হবে। নির্বাচনে ৫০ হাজার ৮০৩ জন আইনজীবী তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাবেন। নির্বাচনে সাধারণ সাতটি আসনে ৩৫ জন প্রার্থী এবং গ্রুপভিত্তিক সাত আসনে ২৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের (সাদা প্যানেল) ব্যানারে সরকার সমর্থক আইনজীবীরা এবং জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেলের (নীল প্যানেল) ব্যানারে বিএনপি-জামায়াত সমর্থক আইনজীবীরা নির্বাচন করছেন। এই দুই প্যানেলের বাইরেও কিছু প্রার্থী রয়েছেন।

সাদা প্যানেলের প্রার্থীরা হলেন- প্রবীণ আইনজীবী সৈয়দ রেজাউর রহমান, মো: কামরুল ইসলাম, মোহাম্মদ মোখলেসুর রহমান বাদল, শাহ মো: খসরুজ্জামান, মো: রবিউল আলম (বুদু), মোহাম্মদ সাঈদ আহমেদ (রাজা) ও মো.নজরুল ইসলাম খান। 

অন্যদিকে নীল প্যানেলের প্রার্থীরা হলেন- সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী, জয়নুল আবেদীন, মুহাম্মদ জসীম উদ্দীন সরকার, এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন, আব্দুল্লাহ আল মামুন, রুহুল কুদ্দুস কাজল ও আব্দুল মতিন।

বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ও অ্যাটর্নি জেনারেল আবু মোহাম্মদ আমিন উদ্দিন গত ২১ মার্চ বার কাউন্সিল নির্বাচন সংক্রান্ত গেজেট প্রকাশ করেন। 

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবন, দেশের সব জেলা সদরের দেওয়ানি আদালত প্রাঙ্গণে একটি করে ভোট কেন্দ্র থাকবে। 

এছাড়া বাজিতপুর, ইশ্বরগঞ্জ, দুর্গাপুর, ভাংগা, চিকন্দি, পটিয়া, সাতকানিয়া, বাঁশখালী, ফটিকছড়ি, সন্দ্বীপ, হাতিয়া, নবীনগর ও পাইকগাছার দেওয়ানি আদালতের প্রাঙ্গণে একটি করে ভোটকেন্দ্র থাকবে।

সর্বশেষ ২০১৮ সালে নির্বাচন হয়েছিলো। ওই নির্বাচনে ১৪টি আসনের মধ্যে ১২টি আসনে জয়ী হয়েছে সরকার সমর্থকদের সাদা প্যানেল। অপরদিকে বিএনপি জোটের নীল প্যানেল পেয়েছিলো মাত্র দু’টি আসন।