ধারণা করা হয়েছিল মিরপুরে স্পিনারদের দাপট দেখা যাবে। কিন্তু শ্রীলঙ্কান স্পিনাররা এখনও কোনো উইকেটই পাননি। দুই পেসার বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসের উইকেটগুলো ভাগাভাগি করেছেন। এর মধ্যে কাসুন রাজিথা প্রথমবারের মতো পাঁচ উইকেট পেয়েছেন। আরেক পেসার আসিথা ফার্নান্দো পেয়েছেন ৪ উইকেট। বাংলাদেশের একজন রান আউট হয়েছেন। 

লঙ্কানদের পতন হওয়া দুই উইকেটের একটিও পেসারের। স্পিনারদের মধ্যে এখন পর্যন্ত একমাত্র সাকিবই কেবল একটি উইকেট নিতে পেরেছেন। তবে শ্রীলঙ্কান পেসার রাজিথার ধারণা, আজ-কালের মধ্যে মিরপুরের উইকেটে স্পিনারদের দাপট শুরু হবে। চলতি সিরিজের উইকেট সম্পর্কে ধারণা দিতে গিয়ে রাজিথা বলেন, 'চট্টগ্রামের উইকেট বেশ শক্ত ছিল। সে তুলনায় ঢাকার উইকেট একটু নরম, কিছুটা মন্থরও। তবে ঢাকার উইকেটে মুভমেন্ট আছে, যা পেসারদের জন্য বেশ ভালো। তবে আগামীকাল (আজ) বা পরের দিন থেকে এখানে বল টার্ন করা শুরু করবে।' 

উইকেটের এ সুবিধাটুকু কাজে লাগিয়ে ক্যারিয়ারসেরা বোলিং করতে পেরে দারুণ খুশি ২৮ বছর বয়সী এ পেসার, 'আমি লাইন ও লেন্থ বজায় রেখে বেসিক নিয়ম মতো বোলিং করেছি। বাঁহাতিদের জন্য রাউন্ড দ্য উইকেটে ডেলিভারি দিয়েছি। এর বাইরে আমি কিছু করিনি।' 

ডানহাতি এ পেসার চোটের কারণে গত ১৮ মাস পুনর্বাসনের মধ্য দিয়ে গিয়েছেন। এসব চোট নাকি মানসিকভাবে তাকে আরও শক্ত করেছে। তাই তিনি এখন ভালো পারফর্ম করছেন বলেও মনে করছেন রাজিথা।