টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে দুই পক্ষের সংঘর্ষে জহিরুল ইসলাম (৩২) নামের একজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও পাঁচজন আহত হয়েছেন। নিহত জহিরুল ইসলাম পাইকড়া ইউনিয়নের সিহরাইল উত্তরপাড়া গ্রামের ছাইদুল মিয়ার ছেলে। 

আজ শুক্রবার দুপু‌রে উপজেলার পাইকড়া ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। 

পাইকড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজাদ হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গোপালপুর গ্রামের বারেকের চায়ের দোকানে টিভি দেখা ও টিভির সাউন্ড বাড়ানো-কমানোকে কেন্দ্র করে বাকবিতণ্ডার শুরু। এ সময় আজিজুল নামের একজনকে বেধড়ক মারপিট করা হয়। এর জের ধরে আজ শুক্রবার দুপুরে সিহরাইল গ্রামের কয়েকজন মিলে গোপালপুর গ্রামে গিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ কয়েকজনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপাতে থাকে। খবর পেয়ে গ্রামের লোকজন তাদের উপর হামলা চালায়। এ সময় দুই পক্ষের সংঘর্ষে জহিরুল ইসলাম নিহত হন। এ ঘটনায় দুই পক্ষের পাঁচজন আহত হয়েছেন। 

আহতদের মধ্যে সিহরাইল গ্রামের জহিরুল ইসলাম (৩৪), তার আপন ভাই নুরু (৩৪), চাচা জিহাদ (৫০) এবং গোপালপুর গ্রামের মেম্বার ফরমান, পাভেল, আবুল, আজগর, জামান, হাসমতসহ বেশ কয়েকজনের নাম জানা গেছে। 

আহত জহিরুল ইসলামকে টাঙ্গাইল ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। গুরুতর আহত নুরুকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার্ড করেছেন চিকিৎসক। 

এ ব্যাপারে কালিহাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা আজিজুর রহমান জানান, নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।