শহরে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা। গৃহবন্দি মানুষ। এই পরিস্থিতিতে ছাত্রদের বাধ্যতামূলক সাঁতার পরীক্ষার কথা বলে সাংহাই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু তা হলেও তো ঠিক ছিল। সমস্যা বাঁধে অন্যত্র। ছাত্রদের অনলাইনে সাঁতার পরীক্ষার কথা বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় হাসির খোরাক হয়ে উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। 

সেই নির্দেশনা মুছেও হয়নি লাভ। গত সপ্তাহে সাংহাই বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ছাত্রদের উদ্দেশে বলা হয়, গ্র্যাজুয়েশন করার আগে এখনো যারা ৫০ মিটার সাঁতার পরীক্ষা সম্পূর্ণ করেননি, তারা তা বাড়ি থেকে অনলাইনে করতে পারেন। 

ওয়েবসাইটে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, সাংহাইয়ের করোনা প্রাদুর্ভাবের মধ্যে স্নাতক প্রক্রিয়া সুচারুভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্যই এই পদক্ষেপ। 

পরে এই পোস্ট ডিলিট করেও শেষ রক্ষা হয়নি। কারণ, ততক্ষণে এই নোটিশের স্ক্রিনশট সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গেছে।

সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীনের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিলেবাসে সাঁতারের দক্ষতা অর্জন আওতাভুক্ত। কারণ, বেঁচে থাকার জন্য এটি অপরিহার্য দক্ষতা হিসেবে বিবেচিত হয়।

এই পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এই বছর অনলাইনে সাঁতারের কোর্স সম্পন্ন করতে হবে। এই বিজ্ঞপ্তি সঙ্গে সঙ্গে ভাইরাল হয়ে যায়। নেটিজেনরা নানা মজার মন্তব্য করতে থাকেন।