সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক আবদুন নুরের নেমপ্লেট খুলে ফেলা এবং আওয়ামী লীগপন্থী কয়েক আইনজীবীকে মারধরের ঘটনায় করা মামলায় বিএনপিপন্থী চার আইনজীবীকে ছয় সপ্তাহের আগাম জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে বিএনপিপন্থী অপর দুই আইনজীবীকে এই সময়ের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি এস এম মজিবুর রহমান সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার এই আদেশ দেন।

আগাম জামিনপ্রাপ্ত চার আইনজীবী হলেন গাজী কামরুল ইসলাম, রাসেল আহমেদ, কামরুল ইসলাম ও সাগর হোসেন। এছাড়া আইনজীবী নুরে আলম সিদ্দিকী সোহাগ ও কাইয়ুমকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের জন্য বলা হয়েছে।

আদালতে বিএনপিপন্থী ছয় আইনজীবীর পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন, এ জে মোহাম্মদ আলী, জয়নুল আবেদীন, মো. রুহুল কুদ্দুস ও এম মাহবুবুর রহমান খান। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারওয়ার হোসেন।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদকের পদ নিয়ে গত ১৮ মে বিএনপিপন্থী ও আওয়ামী লীগ-সমর্থক আইনজীবীদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। সমিতির সম্পাদক আবদুন নুরের কক্ষের সামনে থাকা তার নেমপ্লেট উপরে ফেলেন বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা।

এ নিয়ে হাতাহাতি ও হট্টগোল হলে আইনজীবী নজরুল ইসলাম প্রামাণিকসহ বেশ কয়েকজন আহত হন। এ ঘটনায় সমিতির প্রশাসনিক কর্মকর্তা রবিউল আলম বিএনপিপন্থী ছয় আইনজীবীর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৫০-৬০ জনের বিরুদ্ধে ১৯ মে শাহবাগ থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় গত রোববার ৬ আইনজীবী আগাম জামিন চেয়ে আবেদন করেন হাইকোর্টে।