বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজশাহীর খড়খড়ি বাইপাস এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাসে উৎসবমুখর পরিবেশে এ সমাবর্তনের আয়োজন করা হয়।

রাষ্ট্রপতি ও বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য মো. আবদুল হামিদের প্রতিনিধি হিসেবে সমাবর্তনে সভাপতিত্ব করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

অনুষ্ঠানে সমাবর্তন বক্তা ছিলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, রাজনীতিক ও সাবেক সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, এমপি সাইফুজ্জামান শিখর ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) সদস্য প্রফেসর ড. বিশ্বজিৎ চন্দ।

উপস্থিত ছিলেন বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান খান, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপদেষ্টা, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের সাবেক হাইকমিশনার প্রফেসর সাইদুর রহমান খান এবং বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর এম ওসমান গণি তালুকদার।

বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থা ও অভিভাবকদের মানসিকতার সমালোচনা করে অনুষ্ঠানে সমাবর্তন বক্তা আসাদুজ্জামান নূর বলেন, বর্তমানে সবাই পরীক্ষা দেওয়া নিয়ে ব্যস্ত। কে কতটুকু শিখছে, তা নিয়ে আমরা খুব বেশি ভাবিত নই। আমাদের অভিভাবক, আমাদের শিক্ষকমণ্ডলী সবাই সন্তানদের ভালো রেজাল্টের দিকে নজর দিচ্ছেন। পাঠ্যপুস্তকের পাতার মধ্যে তাদের আটকে রেখেছেন। কিন্তু জীবনটা তো অনেক বড়। জীবনটা তো শুধু পাঠ্যপুস্তকের মধ্যে আটকে থাকে না।

গ্র্যাজুয়েটদের উদ্দেশে তিনি বলেন, সামনে আমরা যে পৃথিবীতে পা দিতে যাচ্ছি, সেই পৃথিবীতে কিন্তু আরও নতুন করে পরীক্ষা দিতে হবে। সেই পরীক্ষার প্রস্তুতি আমাদের কতটুকু আছে?

সমাবর্তনের সভাপতি শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি গ্র্যাজুয়েটদের উদ্দেশে বলেন, আপনারা লক্ষ্য স্থির করুন। আপনাদের মেধা, আপনাদের দক্ষতা-যোগ্যতা-শ্রম-অধ্যবসায় দিয়ে আপনারা লেগে থাকবেন। লেগে থাকলে সাফল্য আসবেই। খেয়াল রাখবেন, সেই সাফল্য যেন কখনও কোনো অসততার কলুষতার কালিমা লিপ্ত না হয়। তিনি সাফল্য পাওয়ার পর সমাজের সবার প্রতি নিজেদের দায়িত্ব পালনের জন্য তাদের প্রতি আহ্বান জানান। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি